ঢাকা, শুক্রবার 10 August 2018, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৭ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সব মিলিয়ে সফল একটা সফর : সাকিব

স্পোর্টস রিপোর্টার : ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতে বিজয়ী বেশে দেশে ফিরেছে ক্রিকেট দল। গতকাল এমিরেটস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে সকাল ৮.৪০ মিনিটে বাংলাদেশে পৌঁছান সাকিব আল হাসানের দল। তবে এদিন দলের সাথে সব ক্রিকেটার আসেননি। ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি, তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহীম থেকে গেছেন যুক্তরাষ্ট্রে। তবে ঈদের আগেই ফিরবেন তারা। 

অন্যদিকে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ খেলতে সেন্ট কিটসে গেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। আর বাংলাদেশ ‘এ’ দলের সাথে যোগ দিতে সৌম্য সরকার গেছেন আয়ারল্যান্ড। ২৭ জুন ২ দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ দিয়ে দীর্ঘ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর শুরু করে টাইগাররা। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে ২টি টেস্ট ও ৩ ম্যাচের ওয়ানডে ও টি- টোয়েন্টি সিরিজ খেলেছে বাংলাদেশ। এর মধ্যে টেস্ট সিরিজটি ২-০ তে হোয়াইটওয়াশ হয় তারা। তবে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ দুইটিতেই ২-১ ব্যবধানে জেতে টাইগাররা। টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজে বাংলাদেশ দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন সাকিব আল হাসান।

 আর ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশের অধিনায়ক ছিলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। বিদেশের মাটিতে এমন পারফরম্যান্স সচরাচর দেখা যায় না। টেস্ট সিরিজে হতাশার শুরুর পর দুর্দান্তভাবে ঘুরে দাঁড়ানো।

 বাংলাদেশ এবার সেটাই করে দেখিয়েছে। বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান সবমিলিয়ে এটাকে সফল এক সফরই মনে করছেন। দেশে ফিরে এই সফরের পারফরম্যান্সে সন্তুষ্টিই প্রকাশ করেছেন সাকিব। তিন সিরিজের মধ্যে দুটি ট্রফি জয় এবং সিনিয়রদের পারফরম্যান্সেও স্বস্তির কথা জানিয়েছেন টাইগার অধিনায়ক। 

ক্যারিবীয় সফরের প্রাপ্তি নিয়ে সাকিব বলেন, ‘হ্যাঁ, সব মিলিয়ে বলতে গেলে এই ট্যুরটা সফল বলতে হবে। তিনটা ট্রফির মধ্যে দুইটা জিতেছি। দেশের বাইরে তো এরকম রেজাল্ট আমরা করি না সাধারণত। খুবই সন্তুষ্ট।’ টেস্ট সিরিজে না হলেও ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি সিরিজে ব্যাটে বলে দুর্দান্ত ছিলেন সাকিব। নিজের পারফরম্যান্স নিয়েও তুষ্ট বাংলাদেশ দলপতি। তিনি বলেন, ‘নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে অবশ্যই খুশি। 

হয়তো আরও অবদান রাখতে পারলে আরও ভালো হতো। ওভারঅল যে ধরনের পারফরম্যান্স হয়েছে তা নিয়ে খুবই আনন্দিত।’ সামনের মাসেই এশিয়া কাপ। সফল একটি সফর শেষ করার আত্মবিশ্বাস এই টুর্নামেন্টে কতটা কাজে দেবে? জবাবে সাকিব বলেন, ‘আসলে সবার আত্মবিশ্বাস অনেক উঁচুতে। বিশেষ করে এরকম একটা ভালো সিরিজের পর আমি বিশ্বাস করি, এখান থেকে হয়ত নতুন কিছু করার দিকে চিন্তা করতে পারব। 

যেটা আমাদের সামনে এশিয়া কাপে অনেক কাজে দেবে।’ টি-টোয়েন্টিতে ব্যাটে বলে দারুণ পারফরম্যান্স করেছেন সাকিব। হয়েছেন সিরিজ সেরা। আরও অবদান রাখতে পারলে খুশি হতেন, কিন্তু আক্ষেপ নেই মনে, ‘নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে অবশ্যই খুশি। আরও অবদান রাখতে পারলে ভালো হতো। সব মিলিয়ে যে ধরনের পারফরম্যান্স হয়েছে, সেটা নিয়ে সন্তুষ্ট।’ বুধবার রাতে ‘এ’ দলের আয়ারল্যান্ড সফরে মুমিনুল হকের ব্যাটে এসেছে ১৮২ রান। 

সীমিত ওভারের ক্রিকেটে তার ফেরার সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছেন না সাকিব, ‘জাতীয় দলের জন্য বিবেচনা করেই আসলে ‘এ’ দল গঠন করা হয়। কাজেই ওখানে যারা ভালো করবে তাদের জাতীয় দলে ফেরার সুযোগ থাকবে।’ আঙ্গুলের ইনজুরি নিয়েই ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে খেলেছেন তিনি। এদিন জানালেন, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আঙ্গুলের অপারেশনটা সেরে ফেলতে চান। সে ক্ষেত্রে অবশ্য এশিয়া কাপে খেলা হবে না তার। বছরের শুরুতে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে আঙ্গুলে চোট পান টাইগার অধিনায়ক। সেই চোট এখনও পুরোপুরি সেরে ওঠেনি। 

এই চোট নিয়েই খেলেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজে। কিন্তু চোট নিয়ে আর খেলতে রাজি নন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অল রাউন্ডার। তিনি বলেন, ‘এটা তো সবাই আমরা জানি এখন যে সার্জারি করতে হবে। ওটা নিয়ে আলোচনা হচ্ছে কোথায় করলে ভাল হয়, কবে করলে ভাল হয়। তবে আমি মনে করি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব করে ফেলা ভাল।’ এশিয়া কাপের আগে যদি অস্ত্রোপচারে যান সাকিব, তবে ওই টুর্নামেন্টে আর খেলা হবে না দেশসেরা এই ক্রিকেটারের। কারণ অপারেশনের পর পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠতে দুই মাস সময় লাগবে তার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ