ঢাকা, শুক্রবার 10 August 2018, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৭ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খুলনায় স্কুল ছাত্রীকে চাকুরীর নাম করে ভারতে পাচার : আদালতে মামলা

 

খুলনা অফিস: খুলনার দাকোপের নলিয়ানে স্কুল ছাত্রীকে ভারতে চাকুরি দেয়ার নাম করে পাচার করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ছাত্রীর পিতা রোকন ফকির বাদী হয়ে চারজনকে আসামী করে খুলনার বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মানব পাচার আইনে মামলা দায়ের করেছেন। তবে পুলিশ এখনো পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। 

খুলনার বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে দায়েরকৃত মামলায় বাদী নলিয়ান গ্রামের রোকন ফকির অভিযোগে উল্লেখ করেন, তার কন্যা নবম শ্রেণীর ছাত্রী রাণীমা খাতুনকে একই এলাকার সাবুদ সানার ছেলে দুই সন্তানের জনক আইয়ুব আলী সানার নেতৃত্বে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। অভিযুক্ত আইয়ুব বিভিন্ন সময় ভারতে ভাল চাকুরীর প্রলোভন দেখিয়ে তার কন্যাকে প্রলুদ্ধ করে আসছিল। 

বিষয়টি রাণীমা তার পিতাকে জানালে রোকন ফকির আইয়ুব আলীকে সাবধান করে দেয়। কিন্তু অভিযুক্ত তাতে কর্ণপাত না করে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে বাপ মেয়েকে মজা দেখাবে মর্মে হুমকি দেয়। ঘটনার দিন ১৯ জুলাই সকালে বাদীর দোকান থেকে রাণীমা খাতুন ফুসলিয়ে তুলে নিয়ে মুখে রুমাল ধরে অজ্ঞান করে মোটরসাইকেলযোগে খুলনা অভিমুখে চলে যায়। এ ঘটনায় শান্ত মোল্যা, জালাল গাজী এবং ওবায়দুল্লাহ সরদার নামের তিন সহযোগী আইয়ুব আলীকে পাচারে সগযোগীতা করে । মেয়েকে ফিরে না পেয়ে গত ২৫ জুলাই রোকন ফকির বাদী হয়ে উল্লেখিত চারজনকে আসামী করে মানবপাচার আইনের ৭/৮/১০ ধারায় মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। বাদী অভিযোগ করেন আসামীরা আমার মেয়েকে ফেরত না দিয়ে মামলা থেকে বাচার জন্য নানা ছল চাতুরির আশ্রয় নিচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে ৩ নং আসামী সম্প্রতি খুলনা প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করে মিথ্যাচার করেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ