ঢাকা, শুক্রবার 10 August 2018, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৭ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খুলনায় শিশু মনিরাকে হত্যার দায়ে মা-ছেলের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

খুলনা অফিস : খুলনার কয়রা উপজেলার হড্ডা গ্রামে পূর্ব শত্রুতার জেরে ৪ বছরের শিশুকন্যা মনিরাকে হত্যা করে ঘেরের ভিতর কাদায় পুতে রাখার মামলায় মা-ছেলের প্রত্যেককে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড, ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরো ৬ মাসের কারাদন্ডাদেশ দিয়েছে আদালত। মঙ্গলবার খুলনার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক মো. নূরে আলম এ রায় ঘোষণা করেছেন।  যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন-খুলনা জেলার কয়রা উপজেলার হড্ডা (ফুলতলা) গ্রামের মো. নাদের গাজীর ছেলে মো. আব্দুল গাজী (৪৫) ও তার মা মান্দারী বেগম (৩০)। রায় ঘোষণাকালে দন্ডপ্রাপ্ত আসামি আব্দুল গাজী ও মান্দারী বেগম পলাতক রয়েছেন।   আদালতের বেঞ্চ সহকারী মো. রুহুল আমীন নথীর বরাত দিয়ে জানান, ২০১১সালের ১২ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টার দিকে খুলনা জেলার কয়রা উপজেলার হড্ডা গ্রামের রেজাউল গাজীর স্ত্রী রিজিয়া খাতুন তার দু’কন্যা শুকজান (৭) ও মনিরা (৪)কে বাড়িতে রেখে পাশের সরকারি পুকুরে পানি আনতে যায়। 

১১টার দিকে বাড়িতে ফিরে দু’মেয়ে না পেয়ে বিভিন্ন আত্মীয়-স্বজনের বাড়ি খোঁজাখুঁজি করতে থাকে মা রিজিয়া। ফুফুতো ভাই জলিল গাজীর বাড়িতে বড় মেয়ে শুকজানকে পাওয়া যায়। চাচা আব্দুল গাজীকে মনিরার কথা জিজ্ঞেসা করলে সে জানায় তাকে দেখে নাই। ১৫ ফেব্রুয়ারি চাচা আব্দুল গাজী রিজিয়া খাতুনকে জানায় সাতক্ষীরার ভোমরার এক গণক বলেছে মনিরাকে কে বা কারা হত্যা করে জোনাব গাজীর ঘেরের ভিতর কাদায় পুতে রাখেছে। ওই দিন রাত ১২টার দিকে কয়রা থানা পুলিশের সহায়তায় জোনাব গাজীর ঘের থেকে মনিরার লাশ উদ্ধার করা হয়। এঘটনায়  নিহত মনিরার মা রিজিয়া খাতুন বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে কয়রা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন যার নং-০৭। ওই বছরের ৩০ জুলাই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কয়রা থানার এসআই মো. কামরুজ্জামান আব্দুল গাজী ও তার মা মান্দারী বেগমকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের কৌশুলী ছিলেন এ পিপি এডভোকেট মো. ইলিয়াস খান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ