ঢাকা, মঙ্গলবার 21 August 2018, ৬ ভাদ্র ১৪২৫, ৯ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

৭২৭ জনের হজযাত্রায় অনিশ্চয়তা

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

বাংলাদেশ থেকে এ বছর এক লাখ ২৬ হাজার ৭৯৮ জনের হজে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আজ (শুক্রবার) সকাল পর্যন্ত সৌদি দূতাবাস থেকে ভিসা না পাওয়া ৭২৭ জনের হজযাত্রা অনিশ্চয়তায় পড়েছে। এরমধ্যে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬৮৮ জন এবং সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৩৯ জন ভিসা পাননি।

আটকে পড়া হজযাত্রী ও তাদের স্বজনদের অভিযোগ এজেন্সিগুলোর বিরুদ্ধে। তারা বলছেন, এজেন্সিগুলো যথাসময়ে বাড়ি ভাড়া না করা, ভিসা আবেদন না করাসহ অবহেলা আর উদাসীনতায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

তবে, অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছেন হজ এজেন্সি মালিকদের সংগঠন হাব। সংগঠনের মহাসচিব শাহাদাত হোসাইন তসলিম বলেন, এ বছর যারা হজে যাওয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছিলেন, তাদের কেউ কেউ অসুস্থতাসহ নানা কারণে যেতে চাইছেন না। মন্ত্রণালয় তাদের কাছে জানতে চেয়েছে, কেন তারা যাবেন না। না যাওয়া যাত্রীর একান্ত ব্যক্তিগত বিষয়। প্রতি বছরই এমনটা হয়ে থাকে।

এদিকে, ৬৮৮ জনের ভিসা না হওয়ায় ব্যাখ্যা চেয়ে এজেন্সিগুলোকে চিঠি দিয়েছে হজ অফিস। তাদের বিরুদ্ধে কোনো অনিয়মের অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন ধর্ম মন্ত্রণালয়ের হজ ব্যবস্থাপনা মনিটরিং কমিটির সভাপতি ও ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বজলুল হক হারুন। তিনি বলেন, যে ৬৮৮ জন যেতে পারছে না, এটা মন্ত্রণালয় বা সৌদি দূতাবাসের দোষে নয়। কিছুটা এজেন্সির কারণে। আর যে ব্যক্তি পাসপোর্ট দিয়েছেন, তারও দোষ আছে। পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে, সে তার দেখা উচিত।

বাংলাদেশ থেকে ১৪ জুলাই শুরু হওয়া হজ ফ্লাইট শেষ যাত্রা করবে ১৬ আগস্ট। পর্যাপ্ত যাত্রী না পাওয়ায় এরইমধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ১৬টি ফ্লাইট বাতিল হয়েছে। এখনও ১৪ ও ১৫ আগস্টের ৮টি ফ্লাইটের টিকিট অবিক্রিত রয়েছে। চাঁদ দেখা সাপেক্ষে এবার সম্ভাব্য হজের তারিখ ২১ আগস্ট। হজ শেষে হাজিদের ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে ২৭ আগস্ট। এবার ১ লাখ ২৬ হাজার ৭৯৮ জন হজযাত্রীর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬ হাজার ৭৯৮ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২০ হাজার জনের হজ করার কথা রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ