ঢাকা, শনিবার 11 August 2018, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৮ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আশরাফুলের নিষেধাজ্ঞা শেষ হচ্ছে ১৩ আগস্ট

স্পোর্টস রিপোর্টার : আবার ক্রিকেটে ফিরছেন মোহাম্মদ আশরাফুল। ১৩ আগস্ট আনুষ্ঠানিকভাবে শেষ হয়ে যাচ্ছে তার নিষেধাজ্ঞা। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ তথা বিপিএলে ম্যাচ পাতানোর অভিযোগে পাঁচ বছর নিষিদ্ধ হয়েছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। এই নিষেধাজ্ঞা শেষ হলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ও বিপিএল খেলার ক্ষেত্রে আর  কোনো বাঁধা থাকবে টেস্ট ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ সেঞ্চুরিয়ানের। অবশ্য ২০১৬ সালের ১৩ আগস্ট থেকে তিনি ঘরোয়া ক্রিকেট  খেললেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খেলতে পারছেন না। এবার আর কোন বাধা থাকছেন যে কোন ক্রিকেটে। ফলে এই দিনটির অপেক্ষায় আছেন আশরাফুল। আশরাফুল বলেন, ‘এই দিনটির জন্য আমি বহুদিন ধরে অপেক্ষা করছি। আমি নিজের  দোষ স্বীকার করে নেওয়ার পর পাঁচ বছরেরও বেশি সময় পেরিয়ে গেছে। অবশ্য আমি  গেল দুই মৌসুমে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলেছি। তবে ১৩ আগস্টের পর থেকে জাতীয় দলের হয়ে ম্যাচ খেলার ক্ষেত্রে আর কোনো বাঁধা থাকবে না আমার। বাংলাদেশের হয়ে আবার  খেলতে পারাটা হবে আমার জীবনের সেরা অর্জন।’ তবে গেল দুই মৌসুম ঘরোয়া ক্রিকেটের খেললেও আশরাফুল ভালো করতে পারেননি। ২০১৭-১৮ মৌসুমে ওয়ালটন ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে পাঁচটি লিস্ট ‘এ’ সেঞ্চুরি করেছেন। লিস্ট ‘এ’ টুর্নামেন্টের এক মৌসুমে পাঁচ সেঞ্চুরি করা দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান তিনি। তার আগে ২০১৫-১৬ মৌসুমে দক্ষিণ আফ্রিকার আলভিরো পিটারসন ঘরোয়া ক্রিকেটে পাঁচটি সেঞ্চুরি করেছিলেন। গত মৌসুমে ২৩টি লিস্ট ‘এ’ ম্যাচে আশরাফুলের ব্যাটিং গড় ছিল ৪৭.৬৩। তবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে তিনি খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। ১৩ ম্যাচে তার গড় ছিল ২১.৮৫। সেঞ্চুরি ছিল মাত্র ১টি। এটা নিয়ে আশরাফুল বলেন, ‘প্রথম মৌসুমটা খুব একটা ভালো যায়নি আমার। তবে ২০১৭-১৮ মৌসুমে আমি ভালো করেছি। সামনের  মৌসুমগুলোতে আমি আরো ভালো করতে চাই। আমার পারফরম্যান্স দিয়ে আমি নির্বাচকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চাই। ইতিমধ্যে আমি এক মাসের অনুশীলন প্রোগ্রাম  শেষ করেছি। ১৫ আগস্টের পর আসন্ন জাতীয় ক্রিকেট লিগের প্রাক-মৌসুম অনুশীলন শুরু করব।’ তবে লম্বা ফরম্যাটেও ভালো করার প্রত্যয় আশরাফুলের কণ্ঠে, ‘আমার ফেরার পর প্রথম  মৌসুম ভালো কাটেনি। কিন্তু ২০১৭-১৮ মৌসুমে ভালো করেছিলাম। পরের মৌসুমে আমি আরও ভালো করবো আশা করি। আমার পারফরম্যান্স দিয়ে এখন আমি দলে ঢোকার যোগ্য। আমি এরই মধ্যে মাসব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে ছিলাম এবং পরের মৌসুমের জাতীয় ক্রিকেট লিগের জন্য ১৫ আগস্টের পর আমি প্রাক-মৌসুম অনুশীলনে যোগ  দেবো।’ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ হলেও আশরাফুল দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলার অনুমতি পান ২০১৬ সাল থেকে। তাই জাতীয় দলে ফেরার প্রস্তুতি মোটামুটি হয়ে গেছে তার।  সোমবার নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হলে নির্বাচকদের ডাকের অপেক্ষায় থাকবেন এই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান। ২০১৪ সালের জুন মাসে বিপিএলের দুর্নীতি দমন ট্রাইব্যুনাল আশরাফুলকে ৮ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করার পাশাপাশি ১০ লাখ টাকা জরিমানা করে। ওই বছরের  সেপ্টেম্বরে বিসিবির ডিসিপ্লিনারি প্যানেল আশরাফুলের নিষেধাজ্ঞা তিন বছর কমিয়ে ৫ বছর করে। এই সময় আশরাফুল বিসিবি ও আইসিসিন দুর্নীতি দমন প্রোগ্রামে, শিক্ষা কর্মসূচি ও ট্রেনিংয়ে অংশ নেন। ২০১৫ সালের বিপিএলে আশরাফুল দুর্নীতি দমনের উপর সচেতনতামূলক ভিডিওতে অংশ নেন এবং সেটা বিপিএলের সময় প্রচার করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ