ঢাকা, রোববার 12 August 2018, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৯ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সত্যকে আড়াল করে এমন ঘৃণ্য মিথ্যাচার কোন সাংবাদিকতার মধ্যে পড়ে না -ছাত্রশিবির

দৈনিক কালেরকন্ঠে ‘ছাত্র আন্দোলনে ঢুকে নাশকতা করতে চেয়েছিল শিবির’ উল্লেখ করে ছাত্রশিবিরকে জড়িয়ে মিথ্যা ও বানোয়াট খবর প্রকাশের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।
গতকাল শনিবার দেয়া বিবৃতিতে এক যৌথ প্রতিবাদ বার্তায় ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত ও সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন বলেন, ছাত্র আন্দোলন নিয়ে অবৈধ সরকারের ষড়যন্ত্রমূলক এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতেই ছাত্রশিবিরকে জড়িয়ে বায়বীয় ও উদ্দ্যেশ্যপ্রণোদিত খবর প্রকাশ করেছে কালের কন্ঠ। প্রতিবেদনে সেবাদাস পুলিশের বানোয়াট বক্তব্যের সাথে নিজেদের কল্পকাহিনী জুড়ে দিয়ে বলা হয়েছে ছাত্র আন্দোলনে ঢুকে নাশকতা করতে চেয়েছিল শিবির। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা এবং বানোয়াট। বরং ছাত্র আন্দোলনে কারওয়ান বাজারে গাড়ি পুড়াতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়েছে ছাত্রলীগ নেতা নাঈম আহমেদ নাঈম। কোমলমতি শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকদের উপর প্রকাশ্য সশস্ত্র হামলা চালিয়েছে নর্দার্ন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক রুবেল হোসেন, ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক ইব্রাহিমসহ চিহ্নিত ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা। আওয়ামী সন্ত্রাসীরা হেলমেট মাথায় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে পুলিশের পাহারায় প্রকাশ্য ছাত্র আন্দোলনে নাশকতা চালিয়েছে। পুলিশের সামনেই সাংবাদিককে কুপিয়েছে। যা শুধু দেশবাসী নয় বরং বিশ্ববাসী দেখেছে। অথচ কালের কণ্ঠ চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের এড়িয়ে গিয়ে ছাত্রশিবিরের নামে কুৎসা রটনা করেছে। ছাত্র আন্দোলনে নাশকতাকারী আওয়ামী সন্ত্রাসীদের কথা একবারের জন্যও আনেনি। এতে প্রমাণ হয় একপেশে দলীয় মনোভাব থেকেই সরকারের বিশেষ এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে ছাত্রশিবিরকে জড়িয়ে ঘৃন্য মিথ্যাচার করেছে কালের কণ্ঠ। সত্যকে আড়াল করে এমন ঘৃন্য মিথ্যাচার কোন সাংবাদিকতার মধ্যে পড়েনা বরং এগুলো ভারসাম্যহীন নিন্ম মানের বিকৃত চিন্তার বহিঃপ্রকাশ।
 নেতৃবৃন্দ বলেন, ছাত্র সমাজের সকল যৌক্তিক ও শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে সব সময় ছাত্রশিবিরের সমর্থন ছিল। কিন্তু নানা রকম অপপ্রচার চালিয়ে ছাত্রসমাজকে ছাত্রশিবির থেকে দূরে রাখার চেষ্টা করা হয়েছে। তবে ছাত্রশিবিরের প্রতি এদেশের ছাত্রসমাজের ধারণা স্বচ্ছ এবং এ সংগঠনের প্রতি ছাত্রসমাজের আস্থা এবং বিশ্বাস রয়েছে। ছাত্রসমাজ ভাল করেই জানে কারা ছাত্র নামধারী হয়েও সন্ত্রাস ও লেজুরবৃত্তি করে ছাত্র সমাজের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয় আর কারা ছাত্রসমাজের ন্যায় সংঙ্গত দাবির প্রতি সমর্থন জানায়। সুতরাং কারো দায়িত্বহীন ও কল্পনাপ্রসূত অপপ্রচারে ছাত্রশিবিরের প্রতি ছাত্রজনতার আস্থা উঠে যাবে না। 
 নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, ছাত্র আন্দোলনে সরকারী মদদে পুলিশ ও আওয়ামী সন্ত্রাসীদের তান্ডব যখন সারা বিশ্বে সমালোচিত হচ্ছে তখন এ ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টার মাধ্যমে সাংবাদিকতার মত একটি পবিত্র ও দায়িত্বশীল পেশাকে নির্লজ্জ ভাবে প্রশ্নবিদ্ধ করে চলেছে কালের কণ্ঠের মত কিছু দলীয় মনোভাবপন্ন একপেশে গণমাধ্যম। যা কোন ভাবেই প্রত্যাশিত নয়। এমন মিথ্যাচার অব্যাহত রাখলে আগামী প্রজন্মের কাছে প্রত্যাখ্যাত হবে কালের কণ্ঠ।
নেতৃবৃন্দ সত্য প্রকাশের স্বার্থে এ ধরণের মিথ্যা ও ভিত্তিহীন প্রতিবেদন প্রকাশ থেকে বিরত থাকতে সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদক ও গণমাধ্যমের প্রতি আহ্বান জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ