ঢাকা, রোববার 12 August 2018, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৯ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খুলনায় আবারো বাড়লো মসলার দাম

খুলনা অফিস : ঈদ উল আজহার মাত্র কয়েক দিন বাকি। এরই মাঝে  আবারো বাড়লো মসলার দাম। দফায় দফায় বাড়ছে দাম। ঈদের দিন যত ঘনিয়ে আসছে মসলার দাম ততোই উর্ধ্বমুখি হচ্ছে। সাধারণ ক্রেতাদের অভিযোগ ঈদকে পুঁজি করে অসাধু ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেটের কারণেই বৃদ্ধি পাচ্ছে মসলার দাম। প্রায় সপ্তাহের ব্যবধানে মসলার দাম কেজিপ্রতি বেড়েছে ১০ থেকে ১৫ টাকা।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রতি বছর ঈদ এলে মসলার একদিকে যেমন চাহিদা বেড়ে যায় তেমন দামও বৃদ্ধি পায়। আর পাইকারী বাজারের চেয়ে খুচরা বাজারে মসলার দাম তুলনামূলক অনেক বেশি। নগরীর বিভিন্ন খুচরা বাজারে প্রতিকেজি লবঙ্গ ১ হাজার টাকা, দারুচিনি ৩২০ টাকা, এলাচ ১৬শ’ থেকে ১ হাজার ৬৫০ টাকা, গোলমরিচ ৮০০ টাকা, জিরা ৩৮০ থেকে ৪৫০ টাকা, ধনিয়া ১৬০ থেকে ১৮৫ টাকা, হলুদ ২০০ থেকে ২১০ টাকা, শুকনো মরিচ ২০০ থেকে ২২০ টাকা, আদা ৯০ টাকা, গোলমরিচ (সাদা) ১২শ’ থেকে ১ হাজার ২৩০ টাকা, আলুবোখারা  ৪০০ থেকে ৪২০ টাকা, গোলমরিচ (কালো) ৮০০ টাকা থেকে ৮২০ টাকা, জয়ফল ১ হাজার ২২০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। অথচ এক সপ্তাহ আগে প্রতিকেজি লবঙ্গ এক হাজার টাকা, দারুচিনি ৩০০ টাকা, এলাচ ১৬শ’ টাকা, গোলমরিচ ৮০০ টাকা, জিরা ৩৮০ থেকে ৪৩০ টাকা, ধনিয়া ১৪০ থেকে ১৮০ টাকা, হলুদ ২০০ থেকে ২২০ টাকা, শুকনো মরিচ ২০০ থেকে ২২০ টাকা, আদা ৯০ থেকে ১০০ টাকা, গোলমরিচ (সাদা) ১২০০ টাকা, আলুবোখারা  ৪০০ টাকা, গোলমরিচ (কালো) ৮০০ টাকা, জয়ফল ১২শ’ টাকা দরে বিক্রি হয়। খুচরা ব্যবসায়ী মো. রমযান আলী বলেন, ঈদকে সামনে রেখে মসলার বাজার একটু বাড়তি হয়েছে। প্রায় এক সপ্তাহের ব্যবধানে মসলার দাম কেজি প্রতি ১০ থেকে ১৫ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। একই ভাবে ব্যবসায়ী ইমাম হোসেন মোল্লা বলেন, মসলার দাম দিন দিন বাড়ছে। প্রতি বছর ঈদের আগেই মসলার দাম বৃদ্ধি পায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ