ঢাকা, সোমবার 13 August 2018, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৫, ১ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কুষ্টিয়ার গড়াই নদীতে প্রকাশ্যে ফেলে দেয়া স্বামী দুই দিনেও উদ্ধার হয়নি ॥ স্ত্রী আটক

কুষ্টিয়া সংবাদদাতা : কুষ্টিয়ার বড় বাজার খেয়াঘাট এলাকার মাঝ নদীতে নৌকা থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়া স্বামীকে ২ দিনেও উদ্ধার করতে পারেনি। পালানোর চেষ্টা করে পুলিশের হাতে আটক হয়েছে এক স্ত্রী। ঘটনার পর থেকে প্রবল স্রোতের মধ্যে তলিয়ে যাওয়া স্বামী সাব্বিরকে খোঁজার চেষ্টা চললেও এখনো উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। শনিবার দুপুরে কুষ্টিয়ার বড় বাজার খেয়াঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, কুষ্টিয়া শহরের বিহারী পট্টির সাইফের ছেলে সাব্বির তার স্ত্রীকে নিয়ে হরিপুর থেকে নৌকাযোগে কুষ্টিয়া বড় বাজার খেয়া ঘাটের দিকে আসছিল। এ সময় স্বামী স্ত্রীর মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে স্ত্রী তার স্বামী সাব্বিরকে হটাৎ ধাক্কা দিয়ে নৌকা থেকে নদীতে ফেলে দেয়। মুহূর্তের মধ্যে ভরা নদীর স্রোতের মধ্যে তলিয়ে যায় সাব্বির। এ সময় ওই নৌকায় থাকা অন্যান্য যাত্রীরা হতবাক হয়ে যায়।
পরে খেয়াঘাটে নৌকা পৌঁছানো মাত্রই বিলকিচ আক্তার নৌকা থেকে নেমে দৌড়ে পালিয়ে যান। খবর পেয়ে পরে পুলিশ তাকে আটক করে।
পরে স্থানীরা ঘটনাস্থলের নদীতে নেমে সাব্বিরকে খোঁজার চেষ্টা করলেও তাকে উদ্ধার সম্ভব হয়নি। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দুদিনে খোঁজাখুঁজি করেও নিখোঁজ সাব্বিরের লাশ উদ্ধার করতে পারেনি। তবে হতভাগ্য সাব্বিরের সলিল সমাধি হতে চলেছে এটা পরিষ্কার হতে চলেছে! এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উদ্ধার কাজ চলছিল।
নিখোঁজ সাব্বিরের বাবা এসএম সাঈদ জানান, শতাধিক মানুষের সামনে আমার ছেলেকে নদীতে ফেলে দেয়া হয়েছে। সাধারণ মানুষ সব দেখে বিলকিসকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে।
দুই পরিবার সূত্রে জানা যায়, পারিবারিকভাবে প্রায় ৬ বছর আগে কুষ্টিয়া শহরের দিশারিপাড়ার সাঈদের ছেলে এসুএম সাব্বিরের সঙ্গে বিলকিসের বিয়ে হয়। বিলকিস কুমারখালী উপজেলার কয়া ইউনিয়নের বানিয়াপাড়া গ্রামের আজিন শেখের মেয়ে। তাদের সংসারে দুই ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।
বেশ কিছুদিন যাবৎ তাদের সংসারে অশান্তি শুরু হয়। মাঝে মাঝে দুজনের মধ্যে বাকবিত-া ও মারামারির ঘটনা ঘটতো।
মডেল থানার ডিউটি অফিসার এএসআই সুস্মিতা পারভীন জানান, সাব্বির দীর্ঘদিন ধরে মাদকাসক্ত। নেশা করে মাঝে মাঝে স্ত্রীকে মারধর করতেন। নৌকার মধ্যে দুজনের মধ্যে বাকবিত-ার এক পর্যায়ে ধস্তাধস্তি শুরু হলে সাব্বির নৌকা থেকে নদীতে পড়ে যান। পরে স্ত্রী নিজেই তাকে উদ্ধারের চেষ্টা করেন।
কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসির উদ্দীন বলেন, স্থানীয়ভাবে উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। কুষ্টিয়াতে কোনো ডুবুরি নেই। সে জন্য ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরাও এসে বিষয়টি দেখছেন। বিলকিচ আক্তারকে থানায় নেওয়া হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ