ঢাকা, সোমবার 13 August 2018, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৫, ১ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

লাব্বাইকা আল্লাহুম্মা লাব্বাইক

স্টাফ রিপোর্টার: আজ সোমবার হিজরী বছরের শেষ মাস জিলহজ্বের শুরু। মুসলিম উম্মাহর মহামিলনের মাস জিলহজ্ব। এ মাসেই সামর্থ্যবান মুসলমানরা পবিত্র হজ্বব্রত পালন করেন। কাবা শরিফের সামনে সশরীরে উপস্থিত হয়ে ঘোষণা দেন “লাব্বাইকা আল্লাহুম্মা লাব্বাইক” অর্থ্যাৎ হে আল্লাহ আমি হাজির, আমি হাজির।
হজ্ব ইসলামের অন্যতম অবশ্য পালনীয় বিধান। যাদের শক্তি-সামর্থ্য আছে তাদের জন্য নামায রোযার মতোই হজ্ব ফরজ। হাদীস শরিফে আছে, আল্লাহ যাদের শক্তি ও সামর্থ্য দিয়েছেন, স্বচ্ছলতা দিয়েছেন, তারা যদি হজ্ব না করেই মৃত্যুবরণ করেন তবে তারা জাহান্নামের ভয়ঙ্কর অগ্নিকুন্ডে নিক্ষিপ্ত হবে। বুখারী শরীফে এসেছে রাসূল (সাঃ) বলেছেন, যার উপর হজ্ব ফরজ হয় সে যদি তা আদায় না করে আমি বলতে পারি না যে, সে ঈমান নিয়ে মারা যাবে কি না।
হজ্বকে ইসলামের অন্যতম খুঁটি বলা হয়। এই হজ্ব ফরজ হওয়ার কতকগুলো শর্ত রয়েছে। সেগুলো হলো, দৈহিক ও মানসিক সুস্থতা, বালেগ বা প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়া, স্বাধীন হওয়া, পরিবারের ভরণ পোষণের মতো অর্থ সম্পদ থাকা, হজ্বে যাওয়ার পথ নিরাপদ হওয়া এবং মহিলাদের জন্য স্বামী অথবা রক্তের সম্পর্কীয় আত্মীয় (মুহরিম) থাকতে হবে। ইসলামে হজ্বের ধর্মীয়, সামাজিক ও রাজনৈতিক গুরুত্ব অত্যাধিক। প্রতি বছর লাখ লাখ মুসলমান বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মক্কায় গিয়ে হজ্বব্রত পালন করে থাকেন। হজ্ব মুসলমানদের আর্ন্তজাতিক মহাসম্মেলন। হজ্বে গিয়ে মুসলমানগণ আল্লাহ তায়ালার কাছে নিজের গুণাহসমূহের ক্ষমা প্রার্থনা করেন, বাকী জিন্দেগী আল্লাহর নির্দেশিত পথে চলার জন্য প্রতিশ্রুতিও ব্যক্ত করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ