ঢাকা, রোববার 23 September 2018, ৮ আশ্বিন ১৪২৫, ১২ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ড্রামের ভেলায় জীবনের পারাপার

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

যোগাযোগ ব্যবস্থা ও অবকাঠামোগত উন্নয়নে দেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে তখন কুমিল্লার মুরাদনগরের পূর্ব ধৈইর পূর্ব ও পশ্চিম ধৈইর পশ্চিম ইউনিয়নের পাঁচ গ্রামের মানুষের অবস্থা এখনো ‘সেই তিমিরেই’ রয়ে গেছে।

একটি মাত্র সেতুর অভাবে এই দুই ইউনিয়নের হিরাপুর, কোরবানপুর, খোশঘর, জানঘর ও নবীয়াবাদ গ্রামের বাসিন্দাদের বর্ষাকালে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হয়।

প্লাস্টিকের ড্রামের ভেলাই তাদের যাতায়াতের অন্যতম মাধ্যম আর শেষ ভরসা।

স্থানীয়রা জানান, জিয়ার খাল নামের ছোট একটি নদী দুই ইউনিয়নের বুক চিরে বয়ে গেছে নবীয়াবাদ থেকে কোরবানপুর পর্যন্ত। যে কারণে দুই ইউনিয়নের মধ্যস্থলে যোগাযোগ করতে ও অন্যান্য দরকারি কাজ সারতে তিন কিলোমিটার রাস্তা ঘুরতে হয়।

এ অবস্থায় প্লাস্টিকের ড্রামের মাধ্যমে নির্মিত ভেলার ব্যবহারে গ্রামবাসীরা দূরত্ব ও যোগাযোগের সময় কমিয়ে এনেছেন। তবে এই ভেলায় পারাপারের বিষয়টি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। এর দুর্ভোগও অনেক। অনেক সময় ভেলা থেকে পড়ে বিভিন্ন দুর্ঘটনারও অভিযোগ রয়েছে।

এলাকার কোরবানপুর জিএম উচ্চ বিদ্যালয়, কোরবানপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নবীয়াবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নবীয়াবাদ ফাজিল মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা প্রতিদিন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ ড্রাম ভেলায় যাতায়াত করে।

এলাকার সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য দুলাল মিয়া বলেন, ‘বিভিন্ন সময়ে ভোট আসলে নেতারা সেতু নির্মাণের কথা বলে গেলেও এখনো কাজের কাজ কিছুই হয়নি। খালটির ওপর একটি সেতু না থাকায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে লোকজন ও শিক্ষার্থীরা ড্রাম ভেলায় পারাপার হচ্ছেন।’

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম বলেন, ‘এলাকার জনগণের দীর্ঘদিনের দাবি একটি সেতু নির্মাণের। আমি অনেকবার এমপি সাহেবের কাছে এ বিষয়ে ধর্ণা দিয়েছি। কিন্তু কোনো বরাদ্দ পাওয়া যায়নি। সেতুটি হওয়া খুবই দরকার। এটি হলে এলাকার পাঁচ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ লাঘব হবে।’-ইউএনবি

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ