ঢাকা, মঙ্গলবার 14 August 2018, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৫, ২ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কাপাসিয়ায় বাঁশ কাটার প্রতিবাদ করায় গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা ॥ গ্রেফতার ২

কাপাসিয়া (গাজীপুর) থেকে শামসুল হুদা লিটন : গাজীপুরের কাপাসিয়ায় গত রোববার বিকালে বাঁশ কাটার প্রতিবাদ করায় শিউলী আক্তার লতা (২৮) নামে এক গৃহবধূ’কে প্রতিবেশী ময়েজ উদ্দিনের পরিবার পিটিয়ে হত্যা করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের ফুলবাড়িয়া গ্রামে। এ ব্যাপারে গতকাল সোমবার নিহত গৃহবধূ’র পিতা মোঃ আসাদুজ্জামান সোহেল বাদী হয়ে ৩ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা আরো ৩ জনকে আসামী করে থানায় মামলা করেছেন। পুলিশ হেলেনা আক্তার ও কাকলী আক্তারকে গ্রেফতার করে গাজীপুর আদালতে প্রেরণ করেছে। নিহত লতা দুবাই প্রবাসী ছাত্তার মোল্ল্যার স্ত্রী। তাদের রিফাত নামে ৯ বছর বয়সী একটি পুত্র সন্তান রয়েছে।
পরিবার সূত্রে জানাযায়, গত রোববার বেলা তিনটার দিকে শিউলী আক্তার লতাদের সিমানার একটি বাঁশ কয়েকদিন যাবত প্রতিবেশী ময়েজ উদ্দিনের ঘরের উপর হেলে পড়ে। বাঁশটি কাটার জন্য ময়েজ উদ্দিন লতার পরিবারকে বার বার তাগাদা দেয়ার পর নিজেরাই কেটে ফেলে।  লতা তাদের বাড়িতে গিয়ে প্রতিবাদ করে এবং কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ময়েজ উদ্দিন (৫০), তার স্ত্রী মোসাঃ হেলেনা আক্তার (৪৫), কাকলী আক্তার (২৪) ও অজ্ঞাতনামা আরো কয়েকজন লাটিসোটা নিয়ে তার উপর অর্তকিতে হামলা চালায়। তারা এলোপাথারী পিটিয়ে তাকে গুরুতর আহত করে। খবর পেয়ে বাড়ির লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা দেয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে সন্ধ্যায় তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। চিকিৎসারত অবস্থায় রাত ৭টার দিকে লতা মারা যায়। মৃতার স্বামী ছাত্তার মোল্ল্যা গত প্রায় ১৫ বছর যাবত দুবাই প্রবাসী। গত দুই বছর আগে ছুটিতে দেশে এসেছিল। লতার বাবার বাড়ি কালীগঞ্জ উপজেলার মনসুরপুর। থানার ওসি (অপারেশন) মনিরুজ্জামান খান জানান, লাশ উদ্ধার করে গতকাল সোমবার  ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত ময়েজ উদ্দিনের স্ত্রী হেলেনা আক্তার ও কাকলী আক্তারকে গ্রেফতার করে গাজীপুর আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ