ঢাকা, বুধবার 15 August 2018, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৫, ৩ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মোবাইল ফোনের কলরেটের সমতা আনার নামে মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত অনৈতিক

স্টাফ রিপোর্টার: মোবাইল ফোনের কলরেটের সমতা আনার নামে মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্তকে অনৈতিক বলে মনে করছেন মুঠোফোন গ্রাহক এসোসিয়েশন। সংগঠনটি বলছে এ ধরনের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করার পূর্বে গ্রাহকদের মতামত নেয়া উচিত ছিল। কারণ বর্তমানের এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের ফলে গ্রাহকদের ব্যয় বৃদ্ধি পাবে। সংশ্লিষ্ট অনেকেই বলছেন, একটি মোবাইল ফোন অপারেটরকে খুশি করার জন্যই সরকার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
মুঠোফোন গ্রাহক এসোসিয়েশন এর সভাপতি মহিউদ্দীন আহমেদ বলেন, সোমবার টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন গ্রাহকদের স্বার্থ বিবেচনায় না নিয়ে শুধুমাত্র অপারেটরদের স্বার্থ বিবেচনা করে ফ্লোর রেটের কল রেট .২৫ পয়সা থেকে বৃদ্ধি করে .৪৫ পয়সা নির্ধারণ করেছে। আমরা মনে করি এ ধরনের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করার পূর্বে গ্রহকদের মতামত নেয়া উচিত ছিল। কারণ বর্তমানের এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের ফলে গ্রাহকদের ব্যয় বৃদ্ধি পাবে বৈ কমবে না। এর জন্য কমিশন প্রয়োজনে গণশুনানি করতে পারতো। তা না করে তাদের নেয়া সিদ্ধান্ত গ্রাহককে মানতে বাধ্য করা একটি অগণতান্ত্রিক ও অনৈতিক সিদ্ধান্ত। বার্তমান গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থায় এ ধরনের হটকারি সিদ্ধান্ত জনগণের ওপর চাপিয়ে দেওয়া যায় কি না তা আমাদের জানা নেই। যদিও এম এন পি বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে দুর্বল অপারেটরদের বাঁচিয়ে রাখার স্বার্থে এ ধরনের সিদ্ধান্ত বিটিআরসি নিয়েছে বলে আমরা মনে করি। অথচ অত্যান্ত দুঃখের বিষয় সরকার বাজেট ঘোষণায় ইন্টারনেটের মূল্যের ওপর ১০% ভ্যাট প্রত্যাহার করলেও বাজেট পাস হওয়ার দেড় মাস অতিক্রান্ত হওয়ার পরও বাস্তবায়ন হয় নাই। অন্যদিকে কল রেটের মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত দ্রুত বাস্তবায়নের নির্দেশ জারি হলো। আমরা সরকারের কাছে দাবি করছি এ ধরনের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে জনমত যাচাই করে বাস্তবায়ন করার অনুরোধ করছি।
এদিকে সংশ্লিষ্ট অনেকেই বলছেন, গ্রাহক তালিকার শীর্ষে থাকা একটি প্রতিষ্ঠানকে খুশি করতেই সরকার কলরেট বাড়িয়েছে। এই অপারেটরের বিরুদ্ধে ইন্টারনেট প্যাকেজে অনিয়ম, গ্রাহকের টাকা কেটে নেয়া, কলড্রপসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। এছাড়াও অপারেটরটির বিরুদ্ধে নিজ প্রতিষ্ঠানের স্টাফদের হয়রানিরও অভিযোগ রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ