ঢাকা, বুধবার 15 August 2018, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৫, ৩ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

চট্টগ্রামে কোরবানির পশুর পর্যাপ্ত মজুদ ॥ দামও সহনীয়

নুরুল আমিন মিন্টু, চট্টগ্রাম ব্যুরো: ঈদুল আযহার আর মাত্র নয়দিন বাকি। চট্টগ্রামে কোরবানির পশুরহাটগুলো কেনাবেচার জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে।
খামারিরা পশু বাজারে তোলার অপেক্ষায় রয়েছে। কিছু কিছু খামারে কোরবানির জন্য পশু বেচাকেনা হচ্ছে।
কোরবানিদাতারা খামার থেকে পছন্দ মতো পশু কিনছেন। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ব্যাপকহারে পশু আসছে। যার ফলে কোরবানির পশু ঘাটতি হবে না এবং দামও সহনীয় থাকবে।
চট্টগ্রাম জেলা প্রাণিসম্পদ অফিসের তথ্যমতে, চট্টগ্রাম মহানগর এবং ১৪ উপজেলায় চলতি বছর ৬ লাখ ৫৫ হাজার ৪১৪টি পশু জবাইয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।
কোরবানিযোগ্য পশু মজুদ আছে ৫ লাখ ৮১ হাজার ৬৩৪টি। সেই হিসেবে চট্টগ্রামে ৭৩ হাজার ৭৩০টি পশু ঘাটতি আছে।
তবে প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তারা বলছেন, নিজস্ব উৎপাদিত পশু দিয়ে লক্ষ্যমাত্রা পূরণ না হলেও এ বছর কোরবানিতে পশুর ঘাটতি হবে না। কারণ কোরবানির হাটগুলোতে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে চট্টগ্রামে পশু প্রবেশ করবে। সুতরাং কোনো ধরনের সংকট হবে না।
গতবছর চট্টগ্রাম নগরী ও বিভিন্ন উপজেলায় পশু জবাই হয়েছিল প্রায় ৫ লাখ ৯৫ হাজার ৮৩১টি। এর মধ্যে চার লাখ ১০ হাজারই ছিল গরু। বাকি পশুর মধ্যে ছাগল-ভেড়া ছিল এক লাখ ৮২ হাজার ৪৪১ এবং মহিষ ছিল ৩ হাজার ৩টি।
জানতে চাইলে জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. রেয়াজুল হক বলেন, মানুষের ক্রয়ক্ষমতা দিন দিন বাড়ছে। বর্তমানে আমাদের পশু মজুদ রয়েছে ৫ লাখ ৮১ হাজার ৬৩৪টি। এখনো আমাদের লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় পশুর সংখ্যা কম রয়েছে।
মৌসুমী গরু ব্যবসায়ীরা দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে গরুর সরবরাহ করছেন। ঘাটতিটা সহজে পূরণ হয়ে যাবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ