ঢাকা, বুধবার 15 August 2018, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৫, ৩ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

তাড়াশ উপজেলা ডাকঘর ভবনের জীর্ণ দশা

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা: তাড়াশ উপজেলা ডাকঘর ভবনের দেয়ালে ফাটল ধরেছে। ছাদের পলেস্তারা ও কংক্রিট খুলে পড়ছে। আর ওই ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে চলছে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সব কার্যক্রম।
সংশ্নিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ১৯৮৪ সালে তাড়াশ উপজেলা ডাকঘরের ভবন কাম পোস্ট মাস্টারের বাসভবন নির্মাণ করা হয়। নির্মাণের ৩৪ বছর পেরিয়ে গেলেও ওই ভবনের উল্লেখযোগ্য কোনো সংস্কার না হওয়ায় ভবনটি ক্রমেই আরও ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে।
উপজেলা ডাকঘরের পোস্ট মাস্টার কর্মা মাহাতো জানান, এরই মধ্যে ভবনের পূর্ব পাশের দেয়ালে ফাটল ধরেছে। কর্মকর্তাদের মাথার ওপরের ছাদে প্রায়ই পলেস্তারা ও কংক্রিট ঝরে পড়ছে। এতে যে কোনো
সময় দুর্ঘটনায় অনেকে আহত হতে পারেন এমন আশঙ্কাও রয়েছে।
ডাকঘরে কাজে আসা সেরাজপুর গ্রামের কলেজশিক্ষক শফিউল হক বলেন, তাড়াশ উপজেলা ডাকঘরের ভবনটির দীর্ঘ সময় সংস্কার না হওয়ায় বর্তমানে বেহাল অবস্থা বিরাজ করছে। ভবন ঘুরে আরও দেখা গেছে, ভবনের ভেতরে দেয়াল ও ছাদের বিভিন্ন স্থানের পলেস্তারা উঠে লোহার মরিচা ধরা রড বের হয়ে গেছে। দীর্ঘ সময় রঙ না করায় শ্রীহীন হয়ে পড়েছে উপজেলা ডাকঘরের ভবনটি।
এ ছাড়া ভবনের সঙ্গেই উপজেলা পোস্ট মাস্টারের বাসভবনটিরও বেহাল অবস্থা। পোস্ট অফিস কাম বাসভবন হওয়ায় পোস্ট মাস্টার পরিবার-পরিজন বাড়িতে পাঠিয়ে নিজে একা ঝুঁকির মধ্যে বসবাস করছেন। অথচ বাসা ভাড়া সরকারি নিয়মেই তাকে গুনতে হচ্ছে বলে তিনি আক্ষেপ করে জানান। পোস্ট মাস্টার বলেন, উপজেলা ডাকঘর ও পোস্ট মাস্টারের বাসভবনটি সংস্কারের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বারবার জানানো হয়েছে। তবে এখনও সংস্কারের কোনো উদ্যোগ নেই।
তাড়াশ উপজেলা ডাকঘর সংস্কার না হওয়া প্রসঙ্গে পাবনা ডাক বিভাগের ডেপুটি পোস্ট মাস্টার জেনারেল আবদুল হান্নান জানান, তিনি তাড়াশ উপজেলা ডাকঘরটি পরিদর্শন করেছেন। আগামীতে অর্থপ্রাপ্তি সাপেক্ষে ভবনটির সংস্কার কাজ করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ