ঢাকা, বৃহস্পতিবার 16 August 2018, ১ ভাদ্র ১৪২৫, ৪ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বাস ও ট্রাক দোকানে ঢুকে স্কুলছাত্রীসহ নিহত ৭ ॥ আহত ৭

সংগ্রাম ডেস্ক : রাজশাহী, চুয়াডাঙ্গা ও কিশোরগঞ্জে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় সাতজন নিহত ও ৭ জন আহত হয়েছেন। আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল বুধবার রাজশাহী নগরীর নওদাপাড়া মোড়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি বাস বইয়ের দোকানের মধ্যে ঢুকে গেলে এক স্কুলছাত্রীসহ তিনজন নিহত ও চারজন আহত হন। তাদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। চুয়াডাঙ্গায় বেপরোয়া ট্রাক চায়ের দোকানের ভিতরে ঢুকে গেলে শফিউদ্দীন শফি (৩০) নামে এক যুবক নিহত হন । গুরুতর আহত হয়েছেন আরো তিন জন। কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলায় বাসচাপায় অটোরিকশার চালক ও  দুই যাত্রী নিহত হয়েছেন।
রাজশাহী অফিস : গতকাল বুধবার বেলা ১১টার দিকে রাজশাহী নগরীর নওদাপাড়া মোড়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি বাস বইয়ের দোকানের মধ্যে ঢুকে পড়ে। এতে এক স্কুলছাত্রীসহ তিনজন নিহত ও চারজন আহত হয়ে। তাদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।
নিহতরা হলেন, নগরীর শাহমখদুম থানার মোড় এলাকার ইসলামের ছেলে ডিস লাইনের মিস্ত্রি ইসমাইল হোসেন পিংকু (২৪) ও সহযোগী একই এলাকার মোহাম্মদ আলীর ছেলে সবুজ ইসলাম (৩২) এবং নওদাপাড়ার ভাড়ালিপাড়া এলাকার রুস্তুম আলীর মেয়ে স্কুলছাত্রী আনিকা খাতুন (১৩)। বাসচাপায় ইসমাইল ও সবুজ ঘটনাস্থলেই নিহত হন। আনিকা খাতুনের মৃত্যু হয় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নেয়ার পর। বোনের সঙ্গে সে তার স্কুলের শোক দিবসের র‌্যালি শেষে বাড়ি ফিরছিল। ইসমাইল ও সবুজ মোটরসাইকেল থামিয়ে একটি দোকানে মুঠোফোন রিচার্জ করছিলেন। এ সময় বাস তাদের চাপা দেয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ‘এ্যারোবেঙ্গল’ নামের ওই যাত্রীবাহী বাসটি রাজশাহী থেকে নওগাঁ যাচ্ছিল। পথে নওদাপাড়া এলাকায় বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তা ছেড়ে প্রায় ২০ ফুট দূরে নেমে একটি মোটরসাইকেলকে চাপা দিয়ে দোকানে ঢুকে যায়। এতে দু’জন ঘটনাস্থলেই নিহত হন। আহত হন পাঁচজন। এদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পর আনিকা মারা যায়। নগরীর শাহমখদুম থানার পুলিশ জানায়, দুর্ঘটনার পর স্থানীয়রা বিক্ষোভ শুরু করলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। তবে দুর্ঘটনার পরই বাসের চালক ও হেলপার পালিয়ে যায়। বাসটি পুলিশের হেফাজতে নেয়া হয়। এদিকে নিহতদের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা করে অনুদান দিয়েছে জেলা প্রশাসন। দুপুরে জেলা প্রশাসক এসএম আবদুল কাদের ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতদের স্বজনদের হাতে অনুদানের এই অর্থ তুলে দেন। এ সময় তিনি দোষি বাসচালকের কঠোর শাস্তি নিশ্চিতের আশ্বাস দেন। এছাড়া দুর্ঘটনায় আহতদের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করারও ঘোষণা দেন তিনি।
কিশোরগঞ্জ সংবাদদাতা: কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলায় বাসচাপায় অটোরিকশার চালক ও  দুই যাত্রী নিহত হয়েছেন। গতকাল বুধবার বিকেল পৌনে ৪টার দিকে ভৈরব-কিশোরগঞ্জ সড়কের কোণাপাড়া এলাকার এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের নাম পরিচয় জানা যায়নি। বিক্ষুব্ধ জনতা বাসটিতে আগুন দিয়েছে। কুলিয়ারচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নান্নু মোল্লা দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
চুয়াডাঙ্গা সংবাদদাতা : চুয়াডাঙ্গায় বেপরোয়া ট্রাক চায়ের দোকানের ভিতরে ঢুকে কেড়ে নিয়েছে শফিউদ্দীন শফি (৩০) নামে এক যুবকের প্রাণ। গুরুতর আহত হয়েছে আরো তিন জন। বুধবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর সড়কের দৌলৎদিয়াড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরই গাড়ির চালক পালিয়ে যায়।
নিহত শফিউদ্দীন ওরফে শফি সদর উপজেলার দৌলৎদিয়াড় গ্রামের মৃত দিদার ম-লের ছেলে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়,গতকাল দুপুর ২টার দিকে চুয়াডাঙ্গা শহরতলীর দোলৎদিয়াড় এলাকার একটি চায়ের দোকানে বসে শফিসহ ৪/৫ জন গল্প করছিলো। এ সময় মেহেরপুর থেকে চুয়াডাঙ্গা অভিমুখে আসা দ্রুতগামী একটি মিনি ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশের ওই দোকানটির ভিতরে ঢুকে পড়ে। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন শফিউদ্দীন ওরফে শফি। গুরুতর জখম হয় আলামিন বেল্টুসহ আরো তিন জন। পরে স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপপাতালে ভর্তি করে।
চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ দুর্ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, দুর্ঘটনার পর পরই ট্রাকটির চালক পালিয়ে যাওয়ায় তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ