ঢাকা, বৃহস্পতিবার 16 August 2018, ১ ভাদ্র ১৪২৫, ৪ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

দেশনেত্রীর মুক্তি এবং নির্বাচনকালীন সরকারের দাবি আদায়ে জীবন বাজি রেখে লড়াইয়ে নামতে হবে

গতকাল বুধবার নয়াপল্টন বিএনপি কার্যালয়ে দলের চেয়ারপার্সন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে কারামুক্তি, আশু রোগমুক্তি ও দীর্ঘায়ু কামনা করে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : কথিত দুর্নীতি মামলায় কারাগারে আটক দলের চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে তার আশু রোগমুক্তি কামনায় দেশব্যাপী দোয়া এবং মিলাদ মাহফিল কর্মসূচি পালন করে বিএনপি। রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এবং গুলশানে চেয়ারপার্সনের রাজনৈতিক অফিসে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। এতে বিএনপির সিনিয়র নেতারা উপস্থিত ছিলেন।  
গতকাল বুধবার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচ তলায় আয়োজিত দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, হারানো গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে এবং দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে জীবন বাজি রেখে লড়াইয়ে নামতে হবে। সরকারকে জনগণের ভোটের অধিকার এবং নির্বাচনকালীন সরকারকে দাবি মানতে বাধ্য করতে হবে।
মির্জা ফখরুল বলেন, রাজনৈতিক দল হিসেবে আমাদের দায়িত্ব হচ্ছে দেশের হারানো গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনা, জনগণের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দেয়া এবং দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা। সেজন্য মানুষের অধিকার ফিরিয়ে আনতে জীবন বাজি রেখে আমাদেরকে লড়াই করতে হবে এবং সেই সংগ্রামে আমাদের জয়ী হতে হবে। সরকারকে বাধ্য করতে হবে একদিকে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে, অন্যদিকে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে নির্বাচন করতে।
বিএনপি মহাসচিব বলেন, আজকে এমন এক মুহূর্তে বেগম খালেদা জিয়ার জন্মদিনে আমরা দোয়া করার জন্য উপস্থিত হয়েছি যখন তিনি এই স্বৈরাচারী সরকারের চক্রান্তে কারাগারে রুদ্ধ হয়েছেন। তিনি শুধু একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী নন, তিনি গণতন্ত্রাতিক আন্দোলনের কয়েকজন ব্যক্তির মাঝে একজন। যিনি সারাটা জীবন গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছেন।
খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক জীবন স্মৃতিচারণ করে মির্জা ফখরুল বলেন, দীর্ঘ নয় বছর তিনি মানুষের কাছে গেছেন, মানুষকে নিয়ে রাজপথে স্বৈরাচার সরকারের পতন ঘটিয়েছেন। তিনি জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে তিনবার দেশের প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। ১/১১ সময় তিনি যখন কারাগারে যান, তখন সেখান (কারাগার) থেকে সরকারকে বাধ্য করেছিলেন জরুরি অবস্থা তুলে নিতে। আজকে তাদের চেয়েও খারাপ হচ্ছে এই সরকার। তারা মানুষের সমস্ত অধিকারগুলো দখল করেছে। তিনি বলেন, সরকার কোমলমতি শিক্ষার্থীদের অরাজনৈতিক আন্দোলনকে নির্মমভাবে দমন করেছে। শিক্ষার্থীদের গ্রেফতার করেছে, তাদের তুলে নেয়া হচ্ছে। মেয়েদেরকেও রেহাই দেওয়া হচ্ছে না।
দোয়া মাহফিলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, হাবিবুর রহমান হাবিব, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক এবিএম ওবায়দুল ইসলাম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলিম, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস প্রমুখ।
এদিকে বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল বাদ মাগরিব চেয়ারপার্সনের গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে তার আশু রোগমুক্তি কামনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এত বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ সিনিয়র নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
লেবার পার্টি: ২০ দলীয় জোটনেত্রী ও বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার ৭৩ তম জন্মদিন উপলক্ষে পল্টন মসজিদে বাদমাগরিব বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুস্থ্যতা কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া মাহফিলে বাংলাদেশের লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডাঃ মোস্থাফিজুর রহমান ইরান, ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আমিনুল ইসলাম রাজু, অর্থসম্পাদক অ্যাডঃ মোঃ আল আমিন, ছাত্রমিশন সভাপতি সালমান খান বাদশা ও পল্টন থানা বিএনপি নেতা এস এম আব্বাস সহ স্থানীয় ২০ দলীয় জোটের নেতৃবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ