ঢাকা, বৃহস্পতিবার 16 August 2018, ১ ভাদ্র ১৪২৫, ৪ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

তালায় বহু অপকর্মের হোতা শাহিনের অত্যাচারে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ

নূর ইসলাম, তালা (সাতক্ষীরা) সংবাদদাতা: সাতক্ষীরার তালার দোহার এলাকার ঘের দখল,অস্ত্রবাজী,চাাঁদাবাজি,খুনসহ বিভিন্ন অপকর্মের হোতা শাহীন শেখ ফের বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। সন্ত্রাসীদের সংগঠিত করে এলাকা অশান্ত করার অপচেষ্টা করছে। বর্তমানে অস্ত্র,চাঁদাবাজি থেকে শুরু করে ঘের দখলসহ তার বিরুদ্ধে তালা ও সাতক্ষীরার বিভিন্ন থানায় অন্তত ৮ টি মামলা থাকাবস্থায় জোরপূর্বক ফের  মৎস্য ঘেরের দখল নেয়ায় অপরাধ জগতে নতুন করে শাহীনের নাম উঠে এসেছে। এদিকে গত সোমবার ২৩ জুলাই তার নিজ বাড়ি দোহারের ঈদগাহ এলাকা থেকে পুলিশ পরিত্যক্ত অবস্থায় দেশী তৈরী আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করায় অস্ত্রের মালিকানা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। ধারণা করা হচ্ছে, অস্ত্রটির সাথে তার কানেকশন থাকতে পারে। প্রসঙ্গত, সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের পদভারে প্রকম্পিত এক সময়কার ভয়াল জনপদ তালার বিস্তীর্ণ এলাকা নতুন করে অশান্ত হতে চলেছে। আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শাহীনের নেতৃত্বে নতুন করে সন্ত্রাসীরা সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছে।
তালা থানা পুলিশের তৎপরতায় সাম্প্রতিক অস্ত্র উদ্ধার ও ঘের দখলের বিষয়টি অন্তত তারই জানান দিচ্ছে। সম্প্রতি ঘটনাটি ঘটেছে তালার জালালপুরের শ্রীমন্তকাটির চর এলাকায়।
অভিযোগে জানাযায়,উপজেলার জালালপুর ইউনিয়নের দোহার গ্রামের মৃত শাহাবউদ্দীন শেখের ছেলে মোঃ শাহীন শেখকে ২০১৫ সালের ১৭ জুন সাতক্ষীরা ডিবি পুলিশ অস্ত্রসহ গ্রেফতার করে। এব্যাপারে তার বিরুদ্ধে অস্ত্র ও বিস্ফোরক মামলা নং ৩৭/২৫৪। ধারা ১৮৭৮ সালের আর্মস এ্যাক্ট এর ১৯ এ তৎসহ ১৯০৯ সালের বিস্ফোরক উপাদানাবলী আইনের ০৩/০৬। ঐমামলায় ২০১৬ সালের শেষের দিকে জেল থেকে জামিন পেয়ে পুনরায় অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে।
এর আগে তার বিরুদ্ধে ২০১০ সালে ৮ জুলাই হত্যা মামলা যার নং সিআর-৮২৮/১০, ধারা ৩০২/ ৩৪,২০০৮ সালের ১৫ অক্টোবর তালা থানার মামলা নং ৬,জিআর ১১১,২০১০ সালের ২৫ মার্চ সাতক্ষীরা থানার মামলা নং ২১/১০,জিডি নং ১২৮৪,২০০৭ সালের ৪ নভেম্বর তালা থানার মামলা নং ৩, জিআর ১৮৪, একই বছরের ১৫এপ্রিল তালা থানার অপর মামলা নং১১,জিআর ৮৫,২০১০ সালের ২৩ মার্চ সাতক্ষীরার হাসপাতাল ভাংচুর মামলা নং সাঃহাসঃসাতঃ /১০/৪০৯/০২,এছাড়া তার বিরুদ্ধে তালা থানায় অসংখ্য জিডি রয়েছে। সর্বশেষ তার বিরুদ্ধে শ্রীমন্তকাটি এলাকার মৎস্য ঘের জোরপূর্বক দখল নিয়ে তালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ হয়। যাবিচারাধীন রয়েছে।
এত অপকর্মের পরও স্থানীয় প্রশাসন এক অজ্ঞাত কারণে তার বিরুদ্ধে কোন প্রকার ব্যবস্থা না নেয়ায় এলাকাবাসী রীতিমত তটস্থ রয়েছে।
এলাকাবাসী আরো জানায়, তার বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুললে শাহীন নানাভাবে তাকে হয়রাণী করে থাকে।
এমনকি মাছের ঘেরে বিষ প্রয়োগ, বিষ খাইয়ে গবাদি পশুর ক্ষতি সাধন, মিথ্যা মামলায় হয়রাণিসহ নানাভাবে ক্ষতিসাধন করে থাকে। ফলে সহজে এলাকার কেউ তার বিরুদ্ধে মুখ খোলেনা। বিনা হারিতে ইজারার মেয়াদ শেষ হলেও শাহীন শেখ জোরপূর্বক জমি দখল করে রাখার অভিযোগ এনে সম্প্রতি জমি মালিকদের পক্ষে উপজেলার শ্রীমন্তকাটীর মৃত হামিদ শেখের ছেলে আবদার শেখ তালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ ও সর্বশেষ গত সোমবার তার দোহার এলাকার ঈদগাহ ময়দান সংলগ্ন জনৈক মুনছুর মোড়লের জমি থেকে তালা থানা পুলিশ পরিত্যক্ত অবস্থায় একটি দেশী তৈরী বন্দুক উদ্ধার করলে ফের শাহীন আলোচনায় এসেছেন।
এলাকাবাসীর ধারণা, শাহীনের সাথে উদ্ধারকৃত অস্ত্রের সম্পর্ক থাকতে পারে।
সবমিলিয়ে তালার জালালপুর ইউনিয়নের দোহার, শ্রীমন্তকাটীসহ বিস্তীর্ণ জনপদের সাধারণ মানুষ আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এক অজানা আশংকায় দিনাতিপাত করছেন।
তাদের দাবি, শাহীনকে আটকাতে না পারলে এলাকায় যেকোন সময় ঘটে যেতে পারে কোন বড় ধরণের প্রাণঘাতি দূর্ঘটনা।
এ ব্যাপারে তারা প্রশাসনের পাশাপাশি সরকারের সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ