ঢাকা, বৃহস্পতিবার 16 August 2018, ১ ভাদ্র ১৪২৫, ৪ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

প্রশাসনের নজরদারির কারণে নৌকায় বাল্য বিয়ে, এলাকায় চাঞ্চ্যল্য

আগৈলঝাড়া (বরিশাল) সংবাদদাতা: বরিশালের আগৈলঝাড়ায় বাল্য বিয়ে প্রতিরোধে প্রশাসনের নজরদারির কারণে শেষ পর্যন্ত নৌকায় বসে বড়-কনের বিয়ে পরিয়েছে পুরোহিত। এঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চ্যল্যর সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানাযায়, উপজেলার বড় বাশাইল গ্রামের জ্যোতিন্দ্র নাথ দাসের মেয়ে ও বাশাইল বালিকা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী মুক্তা রানী দাস (বৈশাখি) এর সাথে একই উপজেলার বাহাদুরপুর গ্রামের পূর্ণ চন্দ্র গাইনের ছেলে প্রশান্ত গাইনের সাথে পারিবারিক ভাবে অনেক দিন থেকেই বিয়ের কথা চলে আসছিল। অতি সম্প্রতি কনের বাড়িতে বাল্য বিয়ের আয়োজন শুনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেল স্থানীয় ইউপি সদস্যকে ডেকে বাল্য বিয়ে বন্ধ করান।
বরের বাড়িতে বসে পুরোহিত দিয়ে সামাজিক ভাবে বিয়ের খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেল ওই এলাকার ইউপি সদস্য সুভাষ ভক্তকে ফোন করে বাল্য বিয়ে বন্ধ করার নির্দেশ দেন। 
ইউপি সদস্য সুভাষ ভক্ত বরের বাড়িতে গিয়ে বিয়ের আয়োজন দেখতে পেয়ে নির্বাহী অফিসারকে অবহিত করেন।
ঘটনা জানাজানি হলে দুই পরিবারের ঘনিষ্ট লোকজন বর এবং কনেকে নৌকায় উঠিয়ে বিলের মধ্যে নিয়ে গোধূলী লগ্নে (সন্ধ্যায়) পুরোহিত দিয়ে বিয়ে পড়ানো হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেল বলেন, বাল্য বিয়ের খবর পেয়ে তিনি ওই এলাকার ইউপি সদস্যকে পাঠিয়েছেন। বাল্য বিয়ের ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ