ঢাকা, শুক্রবার 17 August 2018, ২ ভাদ্র ১৪২৫, ৫ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

একটি প্রাণবন্ত সাহিত্য আড্ডা

মনে কত কথাই  জমা থাকে,কত চিন্তাই  ঘুরপাক খায় মগজে। বিশেষত চিন্তাশীল যারা তাদের। কতই বা লেখা যায় কলমে। কতইবা সঞ্চিত করা যায় কাগজে। কিছু কথা লেখার চেয়ে বলতে পারাতেই স্বাচ্ছন্দ অনুভব করেন বক্তা, কিছু চিন্তা শেয়ার করাতেই স্বস্তি পান চিন্তক। আর এর জন্য প্রয়োজন সাহিত্য আড্ডার। তাই কর্মময় জীবনে ব্যাস্ততার মাঝে লেখালেখির মানুষগুলো কোনো আড্ডার আহবানে সাড়া দেন কাজকর্ম একপাশে রেখে। ১১ আগস্ট শনিবার বিকাল পাঁচটায় কবি কথাশিল্পী সাংবাদিক আহমদ বাসিরের আহবানে সমবেত হন একদল আড্ডাবাজ ব্যাস্ত মহানগরীর পরিচ্ছন্ন,নিরিবিলি এলাকা মিরপুর ডি ও এইচ এস এ।

আহমদ বাসিরের সঞ্চালনায় শুরু হয় আড্ডা। চলে মুক্ত আলোচনা। কখনো গান,কখনো ছড়া-কবিতা পাঠ। আর প্রাণবন্ত মুক্ত আলোচনা। শিল্পী মুহিব্বুল্লার গানে মোহিত হয় সবাই। শুরু হয় কথা। কথায় কথায় মুখর হয়ে ওঠে আড্ডাস্হল । দেশ বিদেশ সমকাল হয়ে ওঠে কথার বিষয় বস্তু।

মুসলমানদের বিভেদের প্রশ্ন উঠতেই বর্তমান বিশ্বের আলোচিত বিশ্ব নেতা তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোগানের কথার প্রতিধ্বনি করে আহমদ বাসির বলেন "মুসলমানদের মাঝে নানা বিভাজন সৃষ্টি করা ইসলামের শত্রুদের কাজ । আপনি  হানাফি, শাফি, শিয়া সুন্নি যাই হোন এটি আপনার পরিচয় নয়। আপনার পরিচয় আপনি মুসলমান। শত্রুরা আপনাকে এইসব বিভাজনে বিভক্ত করে দূর্বল করে রাখে, নিজের জাতির ভিতর নিজেকে  প্রতিপক্ষ করে তুলে। অতএব আপনাকে এইসব প্রুপ থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। অস্বীকার করতে হবে ক্ষুদ্র পরিচয়। আমার পরিচয় আমি মুসলমান।

শিকদার মস্তুফা বলেন," আমাদের দেশে অনেক সম্ভাবনাময় প্রতিভা একটা পর্যায়ে এসে হয় ঝিমিয়ে পড়ে নতুবা ঝরে পরে। এর অনেক কারণ। তদ্মধ্যে অন্যতম হল পৃষ্টপোষকের  অভাব। কবি, লেখক, শিল্পী, সাহিত্যিকের প্রতি  পৃষ্টপোষকতা না আছে রাষ্টে, না আছে সমাজে, এবং তা অনুপস্হিত সমাজের দায়িত্বশীলদের মাঝেও। একজন সৃষ্টিশীল মানুষকে যদি সদা তটস্ত থাকতে হয় একবেলা খাবারের জন্য,একটা কাপড়ের জন্য তাহলে তার সৃষ্টিশীল মননে স্হবিরতা আসাই স্বাভাবিক।

শিকদারের কথার রেশ ধরে এবং তার কথার সাথে সহমত প্রকাশ করেন কবি তাজ ইসলাম। এবং  তিনি আরো বলেন শত প্রতিকুলতার ভিতরও একজন লেখক বা স্বপ্নবান মানুষকে কাজ করে যেতে হবে অবিরাম। কাজের কোন বিকল্প নাই। কাজ করতে হবে সেচ্ছায় স্বউদ্যোগে। 

ফাঁকে ফাঁকে চলে গান কবিতা পাঠ। কবিতা পাঠ করেন লোকমান হোসেন জীবন, শিকদার মোস্তফা। তারপর আবার আলোচনায় যোগদেন তরুণ সাংবাদিক নেতা কবি রফিক লিটন। রফিক বলেন সাহিত্য সভা এ মহানগরে অনেক হয়। বেশীর ভাগই গতানুগতিক  এর বাইরে কিছু করার ভাবনা বড়দের করতে হবে। বিশেষত তরুণদের তৈরী করার উদ্যোগ নিতে হবে। এরপর তিনি পাঠ করেন নিজের প্রিয় ছড়া। আবৃত্তি করেন প্রখ্যাত কবি মতিউর রহমান মল্লিকের কবিতার অংশ।

আলোচনায় অংশ নেন লোকমান হোসেন জীবন, শিল্পী মহিববুল্লাহ, শিল্পী তরিকুল ইসলাম বলে।

উপস্হিত ছিলেন শাহজালাল,মফিজুল হক, আবু হানিফ প্রমুখ। 

প্রাণবন্ত এ সাহিত্য অড্ডার আয়োজন করে  বিপরীত উচ্চারণ ।

-তাজ ইসলাম

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ