ঢাকা, শুক্রবার 17 August 2018, ২ ভাদ্র ১৪২৫, ৫ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

অবসর জীবন উপভোগ করছেন ডি ভিলিয়ার্স

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে হঠাৎ অবসর নিয়েছিলেন এ বি ডি ভিলিয়ার্স। তার এমন অবসরে ভক্ত-সমর্থকরা বেশ হতাশই হয়েছিল। তবে এত দিন অবসরের কারণ না জানালেও অবশেষে দক্ষিণ আফ্রিকার একটি সংবাদপত্রকে এবি জানিয়েছেন, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের অতিরিক্ত চাপ থেকে মুক্তি পেতেই তার এই সিদ্ধান্ত। এ প্রসঙ্গে ‘মিস্টার ৩৬০ ডিগ্রি’ খ্যাত এ তারকা বলেন, ‘প্রচুর চাপ ছিল আমার ওপর। মনে হতো সবাই আমার ওপরই নির্ভর করছে। রান করার চাপে কখনো, কখনো অসহ্যকর পরিস্থিতি তৈরি হত। কোচ, সমর্থক, সবার চাহিদা মেটাতে আর ইচ্ছে করছিল না।’ তিনি আরও বলেন, ‘এটা ঠিক ম্যাচে বড় সেঞ্চুরি করাটা দারুণ। যেখানে সবাই তোমাকে নিয়ে আনন্দ করবে। মাথায় তুলে রাখবে। তবে সত্যি কথা বলতে, এগুলোর অভাব আমি আর অনুভব করি না। অবসর জীবন খুব সুখে কাটাচ্ছি। এ রকমই থাকতে চাই।’ অবসরের পর পরিবারকেই বেশি সময় দিতে চান ডি ভিলিয়ার্স, ‘ক্রিকেট ছাড়ার পরে অনেক শান্তিতে রয়েছি। জানি এটা বললে ঠিক হতো ‘আমি ক্রিকেটের অভাব টের পাচ্ছি। কিন্তু আপনাদের বলতে চাই, যে ক’জন ক্রিকেটার রয়েছেন, প্রত্যেকেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বাড়তি চাপ অনুভব করে। যারা বলছে করি না, তারা প্রত্যেকে সমর্থকদের বোকা বানাচ্ছে, সঙ্গে নিজেকেও।’ ২০০৪ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টের মধ্যদিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিল ডি ভিলিয়ার্সের। যেখানে ১১৪ টেস্টে ৮৭৬৫ রান রয়েছে তার। সেঞ্চুরি করেছেন ২২টি। পরের বছরই একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ওয়ানডে অভিষেক হয়। ২২৮টি ম্যাচ খেলে ২৫টি সেঞ্চুরিতে করেছেন ৯৫৭৭ রান। দুই ফরম্যাটেই তার গড় পঞ্চাশের ওপর।২০১৫ সালে ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে ইতিহাসে দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েছিলেন ডি ভিলিয়ার্স। তিন অঙ্কের ম্যাজিক ফিগার ছুঁতে মাত্র ৩১টি বল মোকাবেলা করতে হয়েছিল এই ডানহাতির।ইন্টারনেট

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ