ঢাকা, শুক্রবার 17 August 2018, ২ ভাদ্র ১৪২৫, ৫ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কোটা ১ থেকে বৃদ্ধি করে ৫ শতাংশ করার দাবি

গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে সরকারি চাকরিতে কোটার সুপারিশ করার জন্য গঠিত কমিটির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয় -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার: প্রতিবন্ধীদের সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে কোটায় খুঁজে পাওয়া যায় না, পৃথিবীর কোনো দেশে প্রথম শ্রেণির সরকারি চাকরিতে কোটা ব্যবস্থা চালু নেই। মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলমের এমন বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ঐক্য পরিষদ।

গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ঐক্য পরিষদ আয়োজিত মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ঐক্য পরিষদের আহবায়ক মো. আলী হোসেন, যুগ্ম সম্পাদক আমজাদ হোসাইন, ইব্রাহীম খলিল, মতিন মিয়া প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে যদি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের খুঁজেই না পাওয়া যায় তাহলে কিভাবে ৩৪, ৩৫, ৩৬ ও ৩৭ তম বিসিএসে ২০ জন শিক্ষার্থী ভাইভায় উত্তীর্ণ হওয়ার পরও মাত্র ৭/৮ জনকে মেধার ভীত্তিতে শিক্ষা ক্যাডারে নিয়োগ দেওয়া হয় এবং বাকিদের ননক্যাডারে তালিকাভূক্ত করা হয়।

প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীরা জানান, মন্ত্রী পরিষদ সচিব বলেছেন পৃথিবীর কোনো দেশে প্রথম শ্রেণির সরকারি চাকরিতে কোটা ব্যবস্থা চালু নেই। আমরা অত্যন্ত পরিতাপের সাথে জানাচ্ছি তার এই বক্তব্য সঠিক নয়, কেননা বাংলাদেশের বন্ধুপ্রতিম রাষ্ট্র ভারতে বিভিন্ন পর্যায়ের প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য ক্যাডার পর্যায়ে ৪ শতাংশ কোটা ব্যবস্থা চালু রয়েছে। আমরা তার বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং তার বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।

তারা আরও জানায়, পিছিয়ে পড়া প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীর জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট প্রতিবন্ধীদের কোটা ১ শতাংশ থেকে বৃদ্ধি করে ৫ শতাংশে উন্নীত করার দাবি জানাচ্ছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ