ঢাকা, শনিবার 18 August 2018, ৩ ভাদ্র ১৪২৫, ৬ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রক্ত দিয়ে হলেও মানুষ ভোটাধিকার ফেরাবে -ড. মঈন

গতকাল শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে নাগরিক অধিকার আন্দোলন ফোরাম আয়োজিত প্রতিবাদী আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান বলেছেন, সরকার এখন এমন অবস্থায় আছে যে তারা সামনেও এগোতে পারছে না। আবার পেছনেও যেতে পারছে না। তিনি বলেন, সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কথা বলে ৫ জানুয়ারির মতো একতরফা নির্বাচন করে মানুষের অধিকার ক্ষুণ্ণ করা যাবে না। প্রয়োজনে রক্ত দিয়ে হলেও মানুষ তাদের ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনবে। গতকাল শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। ‘কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও নিরপেক্ষ নির্বাচন : সঙ্কট ও উত্তরণের একমাত্র উপায়’ শীর্ষক এ আলোচনা সভার আয়োজন করে নাগরিক অধিকার আন্দোলন ফোরাম। আয়োজক সংগঠনের উপদেষ্টা সাঈদ আহমেদ আসলামের সভাপতিত্বে এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মাদ রহমতুল্লাহ, সাবিরা নাজমুল, কৃষক দল নেতা শাহজাহান মিয়া সম্রাট প্রমুখ।
তিনি বলেন, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে সরকারের বাধা কোথায়? ২০১৪ সালের এক তরফা নির্বাচন দিয়ে সরকার কি পেরেছে সঙ্কট সমাধান করতে? পারেনি। আজও যদি তারা আবারও একতরফা নির্বাচন করতে চায় তাহলেও এই সঙ্কটের সমাধান হবে না। একদলীয় নির্বাচন এই দেশের রাজনৈতিক সমস্যা সমাধান নয়। এটা বিএনপিকে বুঝলে হবে না, দেশের মানুষ বুঝলে হবে না। এটা সরকারকে আগে বুঝতে হবে।
মঈন বলেন, একটি সত্য বুঝতে হবে, সংবিধানের জন্য মানুষ নয়, মানুষের জন্য সংবিধান। কখনও সংবিধানের দোহাই দিয়ে জনগণকে দাসত্ব করানো যাবে না। মানুষের প্রয়োজনে আমরা সংবিধান তৈরি করি, মানুষের প্রয়োজনে সংবিধান লঙ্ঘন করে আবার নতুন করে সংবিধান প্রণয়ন করে। এর ইতিহাস শুধু বাংলাদেশে নয়, পৃথিবীর বহু দেশে আছে। তিনি আরও বলেন, আমরা ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য আন্দোলন করি না । বিএনপির আদর্শ এ দেশের মানুষের কল্যাণ সাধন। এ দেশের মানুষের অধিকার আদায়ের জন্য সংগ্রাম করা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ