ঢাকা, শনিবার 18 August 2018, ৩ ভাদ্র ১৪২৫, ৬ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

স্বৈরাচারী কায়দায় এই অবৈধ সরকার বিএনপির নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করছে -ডা. শাহাদাত হোসেন

চট্টগ্রাম ব্যুরো : চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. শাহাদাত  হোসেন বলেছেন, এই অবৈধ সরকার ফ্যাসিস্ট কায়দায় দেশ শাসন করছে। প্রতিনিয়ত বিএনপি নেতাকর্মীদের বিনা কারণে গ্রেপ্তার, নির্যাতন, নিপীড়ন চালাচ্ছে। ক্ষমতা কারো চিরস্থায়ী নয়, কোন সরকারই শেষ সরকার নয়। বিএনপির চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায় ভাবে সাজা দিয়ে কারাগারে আটকে রেখেছে। গ্রেপ্তার, নির্যাতন, নীপিড়ন চালিয়ে বিএনপির গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে স্থব্ধ করা যাবে না। অবিলম্বে বিএনিপর চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া সহ সকল রাজবন্ধীদের মুক্তি দিতে হবে। তিনি নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলুকে  গ্রেপ্তারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তার মুক্তির দাবী করেন। তিনি গত বৃহস্পতিবার বিকালে চট্টগ্রামে কোর্টহিল চত্বরে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলুকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদ সমাবেসে উপরোক্ত কথা বলেন।
নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এইচ.এম রাশেদ খানের সভাপতিত্বে এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলী মর্তুজা খাঁনের সঞ্চালনায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নগর যুবদলের সভাপতি  মোর্শারফ হোসেন দিপ্তি, নগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম দুলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল হালিম স্বপন, নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি আসাদুজ্জামান খান, সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউর রহমান জিয়া প্রমুখ।
এদিকে গত ১৬ আগষ্ট বিকাল ৪টায় বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলুর মুক্তির দাবীতে বাকলিয়া থানার স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা মোঃ দুলাল ও এম এ হানিফের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিলটি বাকলিয়া ডিসি রোড হয়ে দেওয়ান বাজার এলাকায় সমাবেশে পরিণত হয়, এ সময় বক্তারা কোনো প্রকার শর্ত ছাড়া বেগম জিয়া ও বুলুকে মুক্তির দাবী জানান, নয়তো আগামী দিনে কঠোর কর্মসূিচ দেওয়ার হুঁশিয়ারি দেন। উক্ত সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন আমিনউল ইসলাম মোল্লা, দেলোয়ার হোসেন, জামশেদ, মোবারক, সোহেল, আক্তার হোসেন, আরিফ, জহির, মানিক, ইমন, রহিম, আরমান প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ