ঢাকা, শনিবার 18 August 2018, ৩ ভাদ্র ১৪২৫, ৬ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নিরাপদ সড়ক চাই কর্মসূচিতে উস্কানির অভিযোগে খুবির ৪ শিক্ষার্থীসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

খুলনা অফিস : খুলনা মহানগরীর শিববাড়ী মোড়ে নিরাপদ সড়ক চাই কর্মসূচিতে উস্কানি দেয়ার অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় সিটি পলিটেকনিক কলেজের এক শিক্ষার্থীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ছাত্র ইলেকট্রিক বিভাগের ৫ম সেমিস্টারের ছাত্র ইবনে খালিদ (১৮)। সে খানজাহান আলি থানাধীন আটরা মাশিয়ালী পশ্চিমপাড়ার বাসিন্দা মো. নুর উদ্দিন মোল্লার ছেলে। বৃহস্পতিবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই রহিত কুমার বিশ্বাস আদালতে খালিদকে হাজির করে ৭দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। আদালতের বিচারক মহানগর হাকিম মো. আমিরুল ইসলাম আগামীকাল রোববার রিমান্ডের দিন ধার্য করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।      
গত ২ আগস্ট নগরীর শিববাড়ী মোড়ে পুলিশের ব্যারিকেড সরিয়ে আপার যশোর রোডে জনগণের উপর হামলা, পুলিশের গাড়িসহ অন্যান্য যানবাহন ভাংচুর, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীদের উস্কে দেয়ার চেষ্টা ও ক্ষতি সাধন করে বলে অভিযোগে আনা হয়েছে। এ ঘটনায় এসআই অচিন্ত্য হালদার বাদী হয়ে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪ শিক্ষার্থীসহ ১৩ জনের নাম উল্লেখ ও আরো ৫০/৬০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে সোনাডাঙ্গা মডেল থানার মামলা দায়ের করেছেন (নং-১৭, তাং- ১৫/০৮/২০১৮)।  
মামলার আসামীরা হলেন-খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য বিভাগের শেষবর্ষের ছাত্র আব্দুল্লাহ আল নোমান (২২), পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের শেষবর্ষের ছাত্র মো. নাবিদ হাসান (২১), ফার্মেসী বিভাগের ৪র্থ বর্ষের ছাত্র মো. নাহারুল ইসলাম (২২) ও ইংরেজী বিভাগের ৪র্থ বর্ষের ছাত্র মো. ইমরান হাসান (২৩), নগরীর টুটপাড়া ২৪, দারোগাপাড়ার আজিজুর রহমান সড়কের মৃত হারুনার রশিদের ছেলে চৌধুরী হাবিবুর রহমান ওরফে রুমান (২৮), ৭২, মিউনিসিপ্যাল ট্যাংক রোডের চুন্নুর বাড়ির ভাড়াটিয়া মো. রফিকুল ইসলামের ছেলে মো. তন্ময় হোসেন মুরাদ (২৪), মিস্ত্রিপাড়ার আকাশ (২৪), মুন্সিপাড়ার তাসদিক (২৩), টুটপাড়া দিলখোলা রোডের রিকি (২১), সাইফুল (২৫), রাতুল (২৪), হামিম (২৬) ও হাজী মহসীন রোডস্থ আরজেন আলী লেনের রনি (২৫)।
মামলার বিবরণে জানা যায়, গত ২ আগস্ট দেশব্যাপী নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন চলাকালে নগরীর শিববাড়ী মোড়ে সকাল ৯টায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীরা মানববন্ধন পালন করে। দুপুর ১টার দিকে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আব্দুল্লাহ আল নোমানের নেতৃত্বে অন্যান্য আসামিরাসহ আরো অজ্ঞাতনামা ৫০/৬০ জন পুলিশের ব্যারিকেড সরিয়ে আপার যশোর রোডে জনগণের ওপর হামলা, পুলিশের গাড়িসহ অন্যান্য যানবাহন ভাঙচুর, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীদের ক্ষেপিয়ে তোলার মাধ্যমে উস্কে দেয়ার চেষ্টা ও ক্ষতি সাধন করে। এছাড়াও তারা পুলিশ পরিদর্শক মো. আব্দুল কুদ্দুস মৃধার বুলেট প্রুপ জ্যাকেট ধরে টানাটানি করে তাকে লাঞ্ছিত করে। দু’পুলিশ সদস্যর নেমপ্লেট ছিনিয়ে নেয় ও অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে সরকারি কাজে বাধাদান করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ