ঢাকা, শনিবার 18 August 2018, ৩ ভাদ্র ১৪২৫, ৬ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

৩০ বছর বেসবল খেলে ৩৮ বছরে ক্রিকেটে

বর্তমান সময়ে ৩৮ বছর বয়সে সাধারণত ক্যারিয়ার গুটিয়ে নেয়ার চিন্তায় থাকেন যেকোন পেশাদার ক্রিকেটার। সেখানে কেউ যখন জীবনের ৩৮ বসন্ত পেরিয়ে এসে নতুন করে ক্রিকেটে নাম লেখান তখন তাতে অবাক না হয়ে উপায় থাকে না। আর এই খবরে চোখ কপালে উঠে যায় তখনই যখন যানা যায় ৩৮ বছর বয়সে ক্রিকেটে আসা ব্যক্তিজীবনের ৩০ বছর কাটিয়েছেন বেসবল খেলে। এমন তাজ্জব ঘটনারই জন্ম দিয়েছেন জাপানের সাবেক বেসবল খেলোয়াড় ও বর্তমান ক্রিকেটার সোগো কিমুরা। নিজ দেশে ৩০ বছর বেসবল খেলার পর কিমুরা এখন জায়গা করে নিয়েছেন জাপানের জাতীয় ক্রিকেট দলেও। ২০০৩ থেকে ২০১৭ পর্যন্ত ১৪ বছর জাপানের পেশাদার বেসবল লিগ খেলেছেন কিমুরা। ইয়োকোহামা বে’স্টারস, হিরোশিমা কার্প ও সেইবু লায়নসের মত বিখ্যাত দলগুলোয় নিজের বেসবল ক্যারিয়ার কাটিয়েছেন কিমুরা। তবে চলতি বছরের শুরুতে লায়নসের সাথে চুক্তি শেষ হওয়ার পরে আর নতুন কোন দল পাননি তিনি। ফলে সিদ্ধান্ত নিয়ে নেন বেসবলে আর নয়, এবার নাম লেখাবেন ক্রিকেটে। ৩৮ বছর বয়সে বেসবল কোচ হওয়ার প্রস্তাব পেলেও কিমুরা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এখনই থামিয়ে দেবেন না নিজের ক্রীড়াজীবন। তাই বেসবল কোচ হওয়ার বদলে নতুন রূপে ক্রিকেটার হয়েই ক্রীড়াজগতে থেকে যাচ্ছেন তিনি। এ ব্যাপারে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে কিমুরা বলেন, ‘আমাকে বেশ কয়েকবার বেসবল কোচ হওয়ার প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল কিন্তু আমি জানি যে এখনো একজন ক্রীড়াবিদ হয়ে থাকতে পারব। তাই যখন আমাকে জিজ্ঞেস করা হলো যে ক্রিকেট খেলবো তখন কিছু ভিডিও দেখে ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠি। এটা আমার জন্য খুবই চ্যালেঞ্জিং ছিল। তবে আমি জানতাম যে আমি যদি আত্মবিশ্বাসী না হই তাহলে কোন কিছুই সম্ভব হবে না। আমি আত্মবিশ্বাসের সাথেই শুরু করি। সাথে এও জানতাম যে এ পথে অনেক পীড়া নিয়েই সফল হতে হবে। তাই শুরুতে দুঃখ বা যন্ত্রণা পেলেও আমি ইতিবাচক থেকে সামনে এগুতে থাকি।’ জানুয়ারিতে ক্রিকেটে নাম লেখানোর পরে ৪ মাসের মধ্যেই জাপানের জাতীয় দলের ২০ সদস্যের স্কোয়াডে ডাক পেয়ে যান কিমুরা। তার ক্রিকেটীয় দক্ষতা দেখে মুগ্ধ হয়ে যান অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের সাবেক ট্রেইনার ক্যামেরন ট্র্যাডেল। এক ইংলিশ সংবাদ মাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারে কিমুরার ব্যাপারে ট্র্যাডেল বলেন, ‘কিমুরা দারুণ খেলছে। যে ব্যক্তি জীবনে কখনো ক্রিকেট খেলেনি তার পক্ষে এমন শুরু করাটা দুর্দান্ত। ক্রিকেটের খুঁটিনাটি জিনিসগুলো খুব দ্রুতই আয়ত্ব করেছে সে।’ ৩০ বছর বেসবল মাঠে কাটানোর পর আগামী সেপ্টেম্বরে ক্রিকেট মাঠে নিজের জীবন শুরু করবেন কিমুরা। সেপ্টেম্বরের ২২-২৩ তারিখে নবনির্মিত সানো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হতে যাওয়া অ্যাম্বাসি কাপের মধ্য দিয়েই শুরু হবে কিমুরার ক্রিকেট জীবন। নিজের দক্ষতা আরও বৃদ্ধি করতে অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে অনুশীলন করেছেন কিমুরা। ইন্টারনেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ