ঢাকা, রোববার 19 August 2018, ৪ ভাদ্র ১৪২৫, ৭ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সামরিক কুচকাওয়াজ বাতিল করলো যুক্তরাষ্ট্র

১৮ আগস্ট, ভক্স ডট কম : ২০১৭ সালে প্যারিসে বাস্তিল দিবসে এক সামরিক কুচকাওয়াজ দেখে আসার পর প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা করেছিলেন, ওয়াশিংটনে আরও জাঁকজমকপূর্ণ একটি সামরিক কুচকাওয়াজ হবে।

তিনি পেন্টাগনকে এর জন্য প্রস্তুতি নিতে নির্দেশ দিয়েছিলেন। কিন্তু শুক্রবার সকালে এক টুইটে ট্রাম্প জানালেন, এ বছর কোনো সামরিক কুচকাওয়াজ হচ্ছে না, কারণ এর জন্য খরচ অসম্ভব বেশি। ২০১৭ সালে বছর ট্রাম্প যখন এই প্রস্তাব করেন, বিভিন্ন মহল থেকে এর প্রতিবাদ করা হয়েছিল। রাশিয়া, চীন বা উত্তর কোরিয়ার মতো কর্তৃত্ববাদী রাষ্ট্রে সামরিক কুচকাওয়াজ কোনো অস্বাভাবিক ঘটনা নয়। উন্নত গণতান্ত্রিক দেশগুলোর মধ্যে একমাত্র ফ্রান্সেই প্রতিবছর বাস্তিল দিবসে একটি সামরিক কুচকাওয়াজ হয়ে থাকে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রে সামরিক শক্তির এ রকম প্রদর্শনী অভূতপূর্ব। শুধু ডেমোক্র্যাট নয়, ট্রাম্পের নিজের রিপাবলিকান পার্টির নেতারাও তার এ প্রস্তাবে বিস্ময় প্রকাশ করেছিলেন। সিনেটর লিন্ডসি গ্রাহাম বলেছিলেন, সোভিয়েত ইউনিয়ন ধাঁচের কোনো সামরিক প্যারেড আমেরিকায় বাঞ্ছনীয় নয়।ক্যালিফোর্নিয়ার ডেমোক্রেটিক কংগ্রেসম্যান জ্যাকি স্পিয়ের কটাক্ষ করে বলেছিলেন, ট্রাম্প নিজেকে নেপোলিয়ন ভাবা শুরু করেছেন। ডেমোক্রেটিক সিনেটর রিচার্ড ব্লুমেনথল প্রস্তাব রেখেছিলেন, সামরিক কুচকাওয়াজের জন্য অর্থ ব্যয় না করে তা সাবেক সৈনিকদের কল্যাণে ব্যবহার করা অনেক বেশি বুদ্ধিমানের কাজ হবে।ওই সময় পেন্টাগন থেকেও বলা হয়েছিল, এটি ব্যয়বহুল ব্যাপার। এর জন্য বাজেটে কোনো বরাদ্দ নেই। তা সত্ত্বেও ট্রাম্প সাবেক সামরিক সদস্যদের স্মরণে প্রতিবছরের ১১ সেপ্টেম্বর যে ‘ভেটারেন্স ডে’ পালিত হয়ে থাকে, সেদিন একটি সামরিক প্যারেড আয়োজনের নির্দেশ দিয়েছিলেন। বিস্তর হিসাব-নিকাশের পর পেন্টাগন থেকে জানানো হয়েছে, এর জন্য খরচ পড়বে ৯০ মিলিয়ন ডলার।এ খরচ ‘হাস্যকর রকম বেশি’, এমন যুক্তি দিয়ে ট্রাম্প নিজেই সেই প্যারেড বাতিলের কথা ঘোষণা করেছেন। তিনি অবশ্য এ জন্য দোষ দিয়েছেন ‘স্থানীয় রাজনীতিকদের’।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ