ঢাকা, রোববার 19 August 2018, ৪ ভাদ্র ১৪২৫, ৭ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে এশিয়ান গেমসের পর্দা উঠলো

স্পোর্টস রিপোর্টার : জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম ক্রীড়া প্রতিযোগিতা এশিয়ান রেগমসের পর্দা উঠলো ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায়। ফুটবল, বাস্কেটবল, হ্যান্ডবলের মতো ইভেন্ট দিয়ে ক্রীড়াবিদদের লড়াই শুরু হয়ে রেগছে আগেই। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হয়নি। অলিম্পিকের পর বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম ক্রীড়া আসর এশিয়ান রেগমসের রেসই আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনটা হলো শনিবার। বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টায়  রেগলোরা বুং কার্নো রেস্টডিয়ামে উদ্ভোধনী অনুষ্টান শুরু হয়। ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তা ছাড়াও এশিয়ান রেগমসের রেভন্যু পালেমবাং। দুই শহরের বিভিন্ন রেভন্যুতে হবে ইভেন্টগুলো। এশিয়াডের ১৮তম এই আসরে ৪০ রেখলায় রেমাট ইভেন্টের সংখ্যা ৪৬২টি। আর ৪৫ রেদশের ১৪ হাজারের রেবশি অ্যাথলেট অংশ নিচ্ছে এবারের এশিয়াডে। এবারের গেমসে ইভেন্ট সংখ্যা বাড়িয়ে অলিম্পিক গেমসকে ও পিছনে ফেলেছে।সর্বশেষ ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত রিও অলিম্পিক রেগমসে ইভেন্ট সংখ্যা ছিল ৩০৬টি। আর এবারের এশিয়ান রেগমসে ৪৬৫টি ইভেন্টের প্রতিযোগিতা হচ্ছে। ইভেন্টের হিসেবে অলিম্পিককেও ছাড়িয়ে রেগলেও ২০২ দেশ নিয়ে অলিম্পিকের তুলনা রেকবল অলিম্পিকের সঙ্গেই চলে। তবে উত্তেজনা ও প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এশিয়ান রেগমস এবার কয়েক কাঠি এগিয়ে যাবে বলে আশা করছে আয়োজক ইন্দোনেশিয়া। ২ রেসপ্টেম্বর পর্দা নামবে এই আসরের।এবারের আসরের ডিসিপ্লিনগুলোর রেমাট ৩২টি হলো অলিম্পিক ডিসিপ্লিন। অন্যগুলো নন-অলিম্পিক ডিসিপ্লিন।

ইন্দোনেশিয়ায় এটি দ্বিতীয়বারের মতো বসতে যাচ্ছে এশিয়াডের আসর। ১৯৬২ সালে প্রথমবার এশিয়ান রেগমস আয়োজন হয়েছিল ইন্দোনেশিয়ায়।তাই ইন্দোনেশিয়ার লক্ষ্য আগের সব আসরকে রেপছনে রেফলার। রেসই লক্ষ্যেই জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্টান উপহারে কোন ঘাটতি রাখেনি আয়োজকরা। উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানেই ফুটিয়ে তুলেছে নিজেদের ইতিহাস-ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি। শুধু উদ্বোধনী ও সমাপনী অনুষ্ঠানের জন্য আয়োজক ইন্দোনেশিয়ার বরাদ্দ ৫৫ মিলিয়ন ডলার। আয়োজনেই সফলতা নয় তারা পারফরমেন্সেও এগিয়ে থাকতে চায়। ইন্দোনেশিয়া এবার দশম স্থানে রেথকে রেশষ করতে চায়। ২০১৪ সালে ইনচেন এশিয়ান রেগমসে ৩৭ রেদশের মধ্যে ১৭তম হয়েছিল ইন্দোনেশিয়া। গত আসরে ১৫১ রেসানাসহ রেমাট ৩৪৫ পদক নিয়ে শীর্ষে ছিল চীন। এবারও যাদের লক্ষ্য রেশ্রষ্ঠত্ব ধরে রাখা।

এদিকে এশিয়াডের এবারের আসরে বাংলাদেশ ১৪ ডিসিপ্লিনের বিভিন্ন ইভেন্টে অংশ রেনবে। বাংলাদেশের হয়ে ১১৭ জন প্রতিনিধিত্ব করছেন রেদশকে। এপর্যন্ত বাংলাদেশের এশিয়াডে পদক সংখ্যা ১২টি। যার ৭টিই এসেছে কাবাডি রেথকে। দুটি নারী কাবাডি রেথকে অন্য ৫টি আসে পুরুষ কাবাডি রেধকে। সিউল অলিম্পিকে রেদশকে একমাত্র ব্যক্তিগত পদক উপহার দিয়েছিলেন বক্সার রেমাশাররফ রেহাসেন। এবারের আসরে কাবাডিকে ঘিরেই আসল বাংলাদেশের প্রত্যশা। সঙ্গে শুটিং, আর্চারিতে আশা ভালো ফলের। এশিয়াডের মার্চ পাস্টে এবার বাংলাদেশের পতাকা বহন করেন এসএ রেগমসে রেদশকে রেসানা উপহার রেদওয়া ভারোত্তলক মাবিয়া আক্তার সীমান্ত।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ