ঢাকা, রোববার 19 August 2018, ৪ ভাদ্র ১৪২৫, ৭ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বিএনপি ও তাদের দোসরেরা আরও আন্দোলন করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে -ওবায়দুল কাদের

স্টাফ রিপোর্টার : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি ও তাদের দোসরেরা আরও আন্দোলন করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুরে রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপকমিটি আয়োজিত ‘গুজব সন্ত্রাস-অপপ্রচার রুখে দাঁড়াও বাংলাদেশ’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন।
আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপকমিটির সদস্যসচিব হাছান মাহমুদের সভাপতিত্বে সভা পরিচালনা করেন দলের উপপ্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম। এতে আরও বক্তব্য দেন একাত্তর টেলিভিশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মোজাম্মেল বাবু, ভিকারুননিসা স্কুলের শিক্ষার্থী জাফরিন আহমেদ, সিটি কলেজের শিক্ষার্থী মানরাজ হোসেন, সিটি কলেজের সহকারী শিক্ষক আহসান হাসীব এবং অভিনেত্রী অরুণা বিশ্বাস। অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম, শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক শামসুন্নাহার চাঁপা, কার্যনির্বাহী সদস্য মারুফা আক্তার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার কার্যালয়ের পাশে নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলার ঘটনাটি তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রীর সেদিনের নির্দেশনার বিষয়টি তুলে ধরে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বারবার অফিস থেকে ফোন করেছিলাম, নেত্রী পার্টি অফিসের গেটে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে আসছে। ওরা আক্রমণ করবে, আমরা কী করব? নেত্রী বললেন, “মার খাও কিন্তু উত্তেজিত হওয়া চলবে না।” নেত্রী যদি এ ধৈর্য ধরার পরামর্শ না দিতেন, ছাত্রছাত্রীদের ওপর বলপ্রয়োগ করা যাবে না, পুলিশকে যদি এ নির্দেশনা না দিতেন, তাহলে কি পুলিশ ধৈর্য ও সংযম দেখাতে পারত?’
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘একটি আন্দোলনকে হিংসাত্মকভাবে ভয়াবহ রাজনৈতিক আন্দোলনে রূপ দেওয়ার যে বিপজ্জনক অ্যাজেন্ডা, সেই অ্যাজেন্ডাকে তিনি (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) সৎ সাহস ও দৃঢ়তা নিয়ে একজন স্ট্রেটসম্যান, চিন্তানায়ক ও রাষ্ট্রনায়কের মতো মোকাবিলা করেছেন।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের পার্টি এখন প্রো-অ্যাকটিভ পার্টি। আমাদের পার্টি যদি প্রো-অ্যাকটিভ না হতো, তাহলে আমরা হেরে যাওয়া চারটি সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জিততে পারতাম না।’
তিনি বলেন, ‘কোটা আন্দোলনের ওপর বিএনপি ও তার সাম্প্রদায়িক দোসরেরা ভর করেছিল। লন্ডন থেকে নির্দেশনা এসেছে। ভয়ংকর আরও কিছু হতে পারত, কিন্তু সেটা সরকার নাইসলি পরিস্থিতি হ্যান্ডেল করেছে এবং সেটা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।’
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমরা এখনো প্রস্তুত। আমরা জানি, আরও এ রকম আন্দোলন করার চক্রান্ত আছে। গোপন  বৈঠক হচ্ছে, দেশে হচ্ছে, বিদেশে হচ্ছে। এ ব্যাপারে আমরা যথেষ্ট সতর্ক ও প্রস্তুত আছি। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত আমাদের অফিস সক্রিয় থাকে। প্রতিদিন আমরা পরিস্থিতির মূল্যায়ন করি। কোনো বিষয়ে আমাদের যদি ঘাটতি থাকে, নেত্রীর সঙ্গে পরামর্শ করে সিদ্ধান্ত নিই এবং এগিয়ে যাই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ