ঢাকা, রোববার 19 August 2018, ৪ ভাদ্র ১৪২৫, ৭ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ঈদ উল আজহায় খুলনায় টিসিবি’র নতুন বরাদ্দ ও ডিলার নেই

খুলনা অফিস : আসন্ন ঈদ উল আজহার জন্য খুলনায় ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) এর নতুন কোনো বরাদ্দ নেই। চলমান দুইজন ডিলার ছাড়া নতুন কোনো ডিলার পণ্য উত্তোলনের আবেদন করেনি। কমেছে চিনির দাম এবং এ সপ্তাহেই বিক্রি কার্যক্রম শেষ করা হবে বলে জানান অফিস প্রধান।
জানা গেছে, খুলনায় টিসিবি’র আঞ্চলিক কার্যালয়ের অধীনে ১৪টি জেলা রয়েছে। জেলাগুলোতে অনুমোদিত ৪৫৬ জন ডিলার রয়েছে। যার মধ্যে ২৫০ জন ডিলার নবায়ন করেন নি তাদের ডিলারশীপ। বাকি ২০৬ জন ডিলার তাদের ডিলারশীপ পরবর্তী বছরের জন্য নবায়ন করেছেন। কিন্তু তাদেরও পণ্য বিক্রিতে নেই কোনো আগ্রহ। গত ঈদ উল ফিতরের বরাদ্দকৃত পণ্য দিয়েই চলছে ঈদ উল আজহার কার্যক্রম। টিসিবি আঞ্চলিক কার্যালয়ের অধীনে মাত্র দুইজন ডিলার ট্রাকসেলের মাধ্যমে পরিচালনা করছে তাদের বিক্রি। তাদের গাড়িতে শুধুমাত্র টিসিবি পণ্যই নয়, রয়েছে অন্যান্য পণ্যও। বিক্রির ক্ষেত্রেও মানা হচ্ছে না টিসিবি’র যথাযথ নির্দেশনা।
এদিকে টিসিবি’র অনুমোদিত পণ্য ঈদ উল আজহায় ডিলার প্রতি বরাদ্দ নির্ধারণ করা হয়েছে ৫০০ থেকে ৭০০ কেজি, তেল ৩০০ থেকে ৬০০ লিটার এবং চিনি ৩০০ থেকে ৬০০ কেজি। তবে নির্ধারণ করা হয়েছে শুধুমাত্র খাতা-কলমে কিন্তু ঈদ উল আজহায় পণ্য বিক্রির জন্য আঞ্চলিক কার্যালয়ে কোনো ডিলারই আবেদন করেননি। সোমবার থেকে শুরু হওয়া ঈদ উল আজহার পণ্য এ সপ্তাহেই শেষ করা হবে। ঈদ উল আজহায় টিসিবির তেল ও ডালের দাম অপরিবর্তিত থাকলেও কমেছে চিনির দাম। দুইদিন আগেও চিনি ৫৫ টাকা করে বিক্রি করা হলেও বর্তমানে তা বিক্রি করা হচ্ছে ৫২ টাকা। এদিকে মাসখানেক আগেও পর্যাপ্ত পরিমাণে ছোলা মজুদ থাকলেও ঈদ উল আজহায় পণ্য বিক্রি শুরুর দুইদিন আগেই তা শেষ হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন টিসিবি কর্মকর্তা।
ময়লাপোতা মোড়ে টিসিবি’র পণ্য কিনতে আসা সোহেল ইসলাম বলেন, নগরীতে কবে থেকে টিসিবি পণ্য বিক্রি শুরু হয় তা জানা যায় না। ময়লাপোতা মোড়ে ঈদ উল ফিতর থেকে নিয়মিত বিক্রি করা হয়। ঈদ উল আজহা উপলক্ষে আলাদা কিছু নেই।
এ ব্যাপারে টিসিবি আঞ্চলিক কার্যালয়ের অফিস প্রধান মো. রবিউল মোর্শেদ বলেন, ঈদ উল আজহায় খুলনার জন্য নতুন কোনো বরাদ্দ নেই। শুধুমাত্র চিনির দাম কমেছে কেজি প্রতি তিন টাকা। সোমবার থেকে শুরু হয়ে এ সপ্তাহেই শেষ হবে। মজুদের পরিমাণ না জানানোর জন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নিষেধ রয়েছে বলেও জানান এ কর্মকর্তা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ