ঢাকা, রোববার 19 August 2018, ৪ ভাদ্র ১৪২৫, ৭ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মুক্তিযোদ্ধা গোলাম কিবরিয়া হয়রানির শিকার

মোঃ লাভলু শেখ, (লালমনিরহাট) থেকে: মুক্তিযোদ্ধা মোঃ গোলাম কিবরিয়া অন্যায়ের প্রতিবাদ করায় নানা ষড়যন্ত্র ও হয়রানীর স্বীকার। তিনি সংশ্লিষ্ট কর্র্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে। জানা গেছে কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ী উপজেলার পানি মাছকুটি এলাকার মরহুম হোসেন আলী আজাদীর ছেলে জাতীর শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযুদ্ধ কালীন ৬ নং সেক্টর এর মেজর  নওজেস উদ্দীন পরিচালিত ইউনিটে অংশগ্রহন করে দেশ স্বাধীনতার অন্যতম বীর সেনা নিজের জীবন বাজি রেখে যিনি দেশকে হানাদার মুক্ত করেছেন। স্বাধীন করার পরেও তিনি এখনও সংগ্রাম করে চলছেন। ফুলবাড়ী উপজেলার সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মজিবর রহমানের নেতৃত্বে ৫৫১ জন মুক্তিযোদ্ধার মধ্যে শতাধিক ভূয়া মুক্তিযোদ্ধাকে হুবহু কাগজপত্র তৈরী করে নিজের প্রভাব খাটিয়ে চূড়ান্ত তালিকায় মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে নাম ঢুকিয়ে সরকারী উচ্চ মহলে তদবীর করে। ভাতাসহ সরকারের নানা রকম সুযোগ সুবিধা প্রদান করে আসছেন। ঘুষ, দূর্নীতি ও অনিয়মের মাধ্যমে অমুক্তিযোদ্ধাদের প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় নাম ঢুকানোর প্রতিবাদ করতেন প্রায়, এমনকি ওই সকল ভূয়া মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে সরকারের উচ্চ মহলে লিখিত অভিযোগ করে মাঠ পর্যায়ে তদন্তের দাবী বিভিন্ন সময়ে করে আসলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে চাকুরীচ্যুত ও প্রাণনাশের হুমকি এবং নামে-বেনামে লিখিত অভিযোগ প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে প্রেরণ করে। মুক্তিযোদ্ধা গোলাম কিবরিয়া যার মুক্তিবার্তা নং -০৩১৬০৮০০৩০, বডি নং-৭২/৩৯, রেজি নং-১৮৯১ কে  হয়রানি করে আসছেন মর্মে গত ০৭/০৮/২০১৮ ইং তারিখ লালমনিরহাট কর্মরত সাংবাদিকদের নিকট হয়রানীর স্বীকার এমন কাগজপত্র দেখান, এসময় তিনি অবিলম্বে ভূয়া মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মাদ আলী সহ ৫৫১ জনের মধ্যে শতাধিক মুক্তিযোদ্ধার ভূয়া সনদ বাতিল পূর্বক  সকল সুযোগ সুবিধা বন্ধের দাবী জানায়। মুক্তিযোদ্ধা গোলাম কিবরিয়া জানান , তিনি বর্তমানে কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ী উপজেলা যুব উন্নয়ন অফিসে “অফিস সহায়ক” হিসেবে কর্মরত রয়েছে। যার চাকুরীচ্যুত করার জন্য বিভিন্নভাবে হয়রানী করছে বলে তিনি জানান। তার বিরুদ্ধে  একের পর এক অভিযোগ করে তদন্তের নামে মানসিক নির্যাতনও  হচ্ছে অনেকটাই। এব্যাপারে তিনি সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ