ঢাকা, সোমবার 20 August 2018, ৫ ভাদ্র ১৪২৫, ৮ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে দেশে গণ আন্দোলন সৃষ্টি করতে হবে -নজরুল ইসলাম খান

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, শুধু হাতে একটি কালো ব্যাজ ধারণের কর্মসূচি করেছি, তাতেই আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এক-এগারোর গন্ধ পাচ্ছেন। এক-এগারোর কাজটা তো আপনারা করেছিলেন। গন্ধ তো আপনারাই পাবেন। প্রকাশ্যে লগি-বৈঠা দিয়ে মানুষ মেরে দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করে ওয়ান ইলেভেন নিয়ে এসেছিলেন, আবার হাসিমুখে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছিলেন। এটা দেশের মানুষ সবাই জানেন। খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে দেশে গণআন্দোলন সৃষ্টি করতে হবে বলেও মন্তব্য করেন নজরুল।
গতকাল রোববার জাতীয় প্রেস ক্লাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশে তিনি এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরাম আয়োজিত 'প্রতিহিংসার রাজনীতি, গ্রহণযোগ্য নির্বাচন, নিরপেক্ষ সরকার গঠন এবং বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম জিয়া, তার বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস ও যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকুর মুক্তির দাবিতে এক যুব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন নজরুল ইসলাম খান।
বিএনপির এই স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, বিএনপির চেয়ারপারসনের নির্দেশে দলটি এখনও শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছে। আমরা এখনও কিছুই করি নাই। বেগম খালেদা জিয়া আমাদের নির্দেশ দিয়ে গিয়েছিলেন শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন করার জন্য, আমরা সেটাই করছি।
সামনের দিনে দেশের মানুষ প্রকাশ্যে রাস্তায় নামবে এমন দাবি করে তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় ২৩টি আসনে নির্বাচন করেছেন, সবক‘টিতে জিতেছেন। আপনারা (সরকার) সেই নেত্রীকে একটি ফালতু মিথ্যা মামলায় কারাগারে আটকে রাখবেন, আর বাংলাদেশের মানুষ চেয়ে চেয়ে দেখবে এটা হবে না। সামনের দিনগুলোতে দেশের মানুষ প্রকাশ্যে এ সরকারের বিরুদ্ধে রাস্তায় নামবে।
বর্তমান সরকারকে স্বৈরাচার আখ্যায়িত করে তিনি বলেন, শুধু গণ আন্দোলনের পন্থায় স্বৈরাচারের পতন হয়েছে ইতিহাস কিন্তু তা বলে না। স্বৈরাচারের পতন আরও করুণভাবে হয়েছে। হিটলার, মুসোলিনির পতন কি গণআন্দোলনে হয়েছিল?
আন্দোলন বলে-কয়ে হয় না মন্তব্য করে নজরুল ইসলাম খান বলেন, আমরা মনে করি গণআন্দোলনের মধ্য দিয়েই এই স্বৈরাচারী সরকার পতন করা সম্ভব। সেটা কখন কোথায় কীভাবে হবে সেটা বলা যাবে না। তবে অতি শিগগিরই হবে। এই স্বৈরাচারের মধ্যেও কীভাবে ছাত্ররা কোটা নিয়ে আন্দোলন করলো এবং কোমলমতি ছাত্ররাও আন্দোলন করেছে। ঠিক একইভাবে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে দেশে গণআন্দোলন সৃষ্টি করতে হবে।
আয়োজক সংগঠনের উপদেষ্টা সাইদ আহমেদ আসলামের সভাপতিত্বে এবং সংগঠনের সভাপতি সাইদুর রহমানের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান আহমেদ আযম খান, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মাদ রহমাতুল্লাহ, নিপুন রায় চৌধুরী, খালেদা ইয়াসমিন প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ