ঢাকা, মঙ্গলবার 21 August 2018, ৬ ভাদ্র ১৪২৫, ৯ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সড়ক নিরাপত্তায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নির্দেশনা

সংগ্রাম ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে (রাজউক) অনুমোদিত নকশা লঙ্ঘন করে পার্কিংয়ের স্থান সংকীর্ণ করা বহুতল ভবন ও শপিং মলের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছে।
গত  রোববার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ে অনুষ্ঠিত এক উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে গৃহীত সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে এ নির্দেশনা দেয়া হয়।
প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে এই বৈঠকে জানানো হয় যে, সংশ্লিষ্ট সব কর্তৃপক্ষ সড়ক নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলার ব্যাপারে তাদের কর্মপরিকল্পনা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে জমা দিয়েছে। এসব পরিকল্পনার আলোকে শিগগির প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।
বৈঠকে জানানো হয়, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) ইতোমধ্যে ট্রাফিক আইন লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া শুরু করেছে। এছাড়া বিআরটিএ তাদের কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে।
ট্রাফিক আইন সম্পর্কে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের সচেতন করতে স্কাউট ও গার্ল গাইডস সদস্যদের নিয়োজিত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বৈঠকে।
সিদ্ধান্তে বলা হয় যে, ট্রাফিক আইনের গুরুত্ব, সড়ক দুর্ঘটনার কারণ এবং পথচারী, গাড়ী ও মোটর সাইকেল চালক, যাত্রী ও যানবাহন মালিকদের দায়িত্ব সম্পর্কিত লিফলেট শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণ করবে স্কাউট ও গার্ল গাইডরা। এরপর স্কাউট ও গার্ল গাইডরা লিফলেটের নির্দেশনা মেনে চলার ব্যাপারে অভিভাবকদের স্বাক্ষর গ্রহণ করে তা সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জমা দেবে। দেশব্যাপী জুমার নামাজের আগে লিফলেটের এ নির্দেশনা পড়ে শোনানো হবে। এর তথ্য শিক্ষা পোর্টালেও দেয়া হবে।
এছাড়া স্থানীয় প্রশাসনের মাধ্যমে ড্রাইভারদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে।
প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ছাড়াও শিক্ষা মন্ত্রণালয়, ডিএমপি ও বাংলাদেশ স্কাউটের কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। ৮ বিভাগের বিভাগীয় পর্যায়ের সংশ্লিষ্ট অনেক কর্মকর্তা ও গার্ল গাইডস এসোসিয়েশন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠকে যুক্ত ছিলেন।
বাল্যবিবাহ বিরোধী প্রচারণার জন্য দু’টি ইউনিসেফ পুরস্কার গ্রহণ
সংগ্রাম ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের বাল্যবিবাহ বিরোধী প্রচারণার স্বীকৃতি স্বরূপ গতকাল সোমবার ইউনিসেফের কাছ থেকে দু’টি পুরস্কার গ্রহণ করেছেন। পুরস্কার দু’টির মধ্যে রয়েছে- অসামান্য অবদান রাখার জন্য দি একোলেড গ্লোবাল ফিল্ম কমপিটিশন ২০১৭ হিউম্যানিটারিয়ান অ্যাওয়ার্ড এবং বাল্যবিবাহ বন্ধ করার স্বীকৃতি স্বরূপ দি একোলেড উইনার অ্যাওয়ার্ড অব এক্সিলেন্স এন্ড চাইল্ড ম্যারেজ।
নারী ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি ও মন্ত্রণালয় সচিব নাসিমা বেগম প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আয়োজিত সাপ্তাহিক মন্ত্রিসভার বৈঠকের শুরুতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পুরস্কার দু’টি হস্তান্তর করেন।
চীনের আরো বিনিয়োগের প্রত্যাশা প্রধানমন্ত্রীর
সংগ্রাম ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চীনকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন সহযোগী আখ্যায়িত করে বাংলাদেশে আরো চীনা বিনিয়োগ প্রত্যাশা করেছেন। গতকাল সোমবার দুপুরে চীনের নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত ঝাং জুয়ো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সংগে তাঁর তেজগাঁওস্থ কার্যালয়ে সাক্ষাৎ করতে এলে প্রধানমন্ত্রী এই প্রত্যাশার কথা বলেন।
বৈঠকের পর সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বলেন, বৈঠকে বাংলাদেশে আরো চীনা বিনিয়োগের আহবান জানান প্রধানমন্ত্রী।
 শেখ হাসিনা বলেন, ‘চীন সরকারের সহযোগিতায় বাংলাদেশের অনেক বড় বড় প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। চীনা বিনিয়োগকারীদের জন্য বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে জমি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে যাতে তারা সেখানে শিল্প-কারখানা স্থাপন করতে পারেন।’
১৯৫২ এবং ১৯৫৭ সালে বঙ্গবন্ধুর চীন সফরের কথা স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, চীন সফরের ওপর বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী মূলক একটি লেখা এখন বই আকারে প্রকাশের অপেক্ষায় রয়েছে।
এ সময় শেখ হাসিনা ঝাঁং জুয়োকে জানান, চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিন পিং বঙ্গবন্ধুর চীন সফরের ওপর বেশ কিছু ছবি তাকে উপহার দিয়েছিলেন।
প্রধানমন্ত্রী নব নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে চীনের প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানান।
সাক্ষাতকালে চীনের নতুন রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে চীন অত্যন্ত গুরুত্ব দেয়।
তাঁর সময়কালে চীনা দূতাবাস বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে বিদ্যমান দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরো এগিয়ে নিতে এবং জোরদার করতে ভূমিকা পালন করবে বলে জানান রাষ্ট্রদূত।
ঝাং জুয়ো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, বাংলাদেশ যথার্থই সোনার বাংলা হবার পথে এগিয়ে যাচ্ছে।
চীনা দূত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান এবং এই মহান নেতার চীন সফরের কথা স্মরণ করেন। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছাও জানান।
এসময় চীনের রাষ্ট্রদূত ‘শি জিন পিং- দি গভর্ন্যান্স অব চায়না’ শিরোনামে একটি বই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দেন।
এ সময় প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো.নজিবুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ