ঢাকা, মঙ্গলবার 21 August 2018, ৬ ভাদ্র ১৪২৫, ৯ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বাউফলে জামায়াতের ১৩ নেতাকর্মী কারাগারে

স্টাফ রিপোর্টার : ২০১৬ সালে দায়ের করা মামলায় বাউফল উপজেলা জামায়াতের সাবেক ও বর্তমান আমীরসহ ১৩ নেতামকর্মী কারাগারে। গতকাল সোমবার পটুয়াখালী চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মো. জামাল হোসেনের আদালতে তারা জামিন আবেদন করলে আদালত তা না মঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।
বাউফল (পটুয়াখালী) থেকে সংবাদদাতা আবু সুফিয়ান জানান, ২০১৬ সালের ১১ জুন বাউফল থানা মামলাটি দায়ের করা হয়। পরে জামায়াত নেতৃবৃন্দ উচ্চ আদালত থেকে এ মামলায় জামিন নেন। গতকাল বিচারিক আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন বাউফল উপজেলা জামায়াতের সাবেক আমীর মাওলানা ইসহাক, বর্তমান আমীর মাওলানা রফিকুল ইসলাম, জামায়াত নেতা ইউনুস বিশ^াস, মাওলানা আবদুস সুবহান, মাওলানা জসিম উদ্দিন, হাফেজ আবদুর রশিদ, মাওলানা সেলিমুর রহমান, মোহাম্মদ উল্লাহ প্রমুখ। আদালত শুনানী শেষে জামিন না মঞ্জুর করেন।
নেতৃবৃন্দের পক্ষে মামলা শুনানী করেন এডভোকেট নাজমুল হোসেন, এডভোকেট মাহবুব বিন নূর প্রমুখ।
নেতৃবৃন্দকে কারাগারে প্রেরণের নিন্দা: মিথ্যা অভিযোগে সরকারের দায়ের করা মামলায় বাউফল উপজেলার জামায়াত নেতৃবৃন্দকে অন্যায়ভাবে আটকের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ। গতকাল সোমবার দেয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, সরকার সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে জামায়াত নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। শুধুমাত্র রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারনে তারা আজ কারাগারে। তিনি বলেন, মানুষ যখন পরিবার পরিজন নিয়ে ঈদুল আযহা উদযাপনের প্রস্তুতি নিচ্ছিল, ঠিক সেই মুর্হুতে তাদেরকে কারাগারের অন্ধকার প্রকোষ্টে নিক্ষেপ করা হয়েছে। সরকার অমানবিকভাবে তাদেরকে পরিবারের সান্নিধ্য পাওয়া থেকে বঞ্চিত করেছে। তিনি অবিলম্বে নেতৃবৃন্দকে মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ