ঢাকা, মঙ্গলবার 21 August 2018, ৬ ভাদ্র ১৪২৫, ৯ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কবিতা

আকাশ যখন বিদীর্ণ হবে...
(সূরা ইনশিক্বাক এর তাৎপর্য)

মোরশেদা সম্পা

আকাশ যখন বিদীর্ণ হবে,
মানবে রবের হুকুম,
জমীন হবে প্রসারিত,
যা কিছু আছে ভিতরে তাহার করবে উদগীরণ।
শূন্য গর্ভ হয়ে করবে রবের আদেশ পালন।
হে মানুষ!
তুমি অনেক কঠোর পরিশ্রম করে,
ছুটে চলছো প্রভুর পানে
সাক্ষাত লাভের তরে,
ডান হাতে যে পাবে হিসেবের খাতা,
কতো যে খুশি হবে।
সহজ হিসাব প্রদান করে
সাথীদের কাছে যাবে।
বাম হাতে দিয়ে আমলনামা,
নিতে চাইবে না তারা।
দুনিয়ার জীবন হাসি-তামাসায়—-
যাপন করছে যারা।
পিছনে নিয়ে হাত লুকালেও,
নিস্তার নাই তার।
কাতর কণ্ঠে বলবে সে,
আমি আবার মরণ চাই,
আগুন বলবে,
আয় মোর কাছে,
এখানে তোর ঠাঁই।
ভেবেছিল সে ফিরতে হবে না।
কখনো প্রভুর কাছে।
সকল কাজের হিসাবসমূহ
তাহার কাছেই আছে।
ধাপে ধাপে তুমি এগিয়ে চলেছ,
আপন প্রভুর পানে।
কি আছে সেথা তোমার জন্য,
প্রভু ছাড়া কেউ জানে।
এখনো তুমি আসলে না পথে?
শুনলে না তুমি বাণী?
যারা চলছো আজ বাঁকা পথ ধরে।
তাদের তরে আছে অপমান আর গ্লানি।
সুসংবাদ রয়েছে তাদের,
সরল সঠিক পথে চলে
আজ যারা এনেছে ঈমান।
রয়েছে শান্তি।
রয়েছে অফুরন্ত পুরস্কার।


একটা মালেক
তাসলিমা কবির

একটা মালেক হাজার কথা
গল্প গানের সুর
এক মালেকে প্রভাত আনে
আঁধার করে দুর।
উপমাতে তাকে খুঁজি
প্রেরণাতেও পাই
চেতনাতেও পাই
চেতনাতে আছে সে যে
সামনে কেবল নাই।
আল-কুরআনের কর্মী ছিল
অগ্রগামী বীর
মহান প্রভুর কাছে ছাড়া
হয়নি নত শির।
করলো প্রমাণ দ্বীনের চেয়ে
নেই জীবনের দাম
ভুলের সাথে আপোস করে
চায়নি পেতে নাম।
শহীদ হয়ে র’চে গেল
শাহাদাতের পথ
সেই মিছিলে ভিড়লো কত
সত্য দা’য়ীর রথ।
পাখি হয়ে এখন
জান্নাতেরই ছায়
উড়ছে প্রভুর আরশ ঘিরে
খুশবু মেখে গায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ