ঢাকা, মঙ্গলবার 21 August 2018, ৬ ভাদ্র ১৪২৫, ৯ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

পদ্মার ভাঙ্গনে নিখোঁজ আল আমিনের লাশ উদ্ধার

শরীয়তপুর (নড়িয়া) সংবাদদাতা: পদ্মার ভাঙ্গনে নিখোজ হওয়ার ৭ দিন পর আল আমিন শেখের মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। আজ সোমবার মেঘনা নদীর চাঁদপুরের হাইচর আলুর বাজার এলাকায় আল আমিনের মরদেহ পাওয়া যায়। মরদেহ সনাক্ত করেছেন আল আমিনের চাচা আবুল কালাম আজাদসহ স্বজনরা। বিষয়টি নিশ্চিত করেন নড়িয়া থানার ওসি আসলাম উদ্দিন ও আল আমিনের অপর চাচা মামুন শেখ।
নড়িয়া থানা ও শরীয়তপুর ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানাযায়, গত ৭ আগস্ট দুপুরে হঠাৎ পদ্মা নদীর ভাঙ্গনে নড়িয়া উপজেলার সাধুর বাজার লঞ্চঘাট ধসে পদ্মায় বিলীন হয়ে যায়। এ সময় ঘাটে থাকা দর্শনার্থী ও দোকানপাট ও মালামাল সরিয়ে নেয়ার কাজে নিয়োজিত কমপক্ষে ৩৫ থেকে ৪০ জন লোক, ৫টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, ২ টি ট্রলি, একটি মালামাল বহনকারী মাহেন্দ্র গাড়ী ও ৩টি মোটর সাইকেল ¯্রােতের টানে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন ২০জনকে উদ্ধার করে নড়িয়ার মুলফৎগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করে।এ ঘটনায় বরিসাল জেলার বাসিন্দা আইটেল মোবাইল কোম্পানীর শরীয়তপুরের এরিয়া ম্যানেজার আল আমিনসহ ১০ জন নিখোজ হয়। নিখোজের ৭ দিন পর আজ সোমবার দুপুরে চাঁদপুর জেলার হাইমচর থানার মেঘনা নদীর আলুর চর নামক স্থানে আল আমিনের মরদেহ খুজে পায় তার স্বজনরা। এর পর হাইমচর থানায় নেয়া হয় আল আমিনের মরদেহ।
আল আমিনের চাচা মামুন শেখ বলেন, আল আমিন নিখোজের সময় গায়ে আইটি মোবাইল কোম্পানীর লাল গেঞ্জি ও জিন্স প্যান্ট পড়া ছিল। এ কারনে আমাদের সনাক্ত করতে সমস্যা হয়নি।
নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আসলাম উদ্দিন বলেন, চাঁদপুরের হাইমচর আলুরচর এলাকায় আল আমিনের মরদেহ পাওয়া গেছে। এ বিষয়টি আমি তার নস্বজনদের কাছ থেকে নিশ্চিত হয়েছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ