ঢাকা, শনিবার 25 August 2018, ১০ ভাদ্র ১৪২৫, ১৩ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আর্চারি কাবাডি ভারোত্তোলনেও ব্যর্থ বাংলাদেশ

স্পোর্টস রিপোর্টার : ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তায় চলমান ১৮তম এশিয়ান গেমসে প্রত্যাশা অনুযায়ি ফলাফল আসেনি আর্চারী, ভারোত্তোলন, কাবাডি, সাঁতার, শ্যুটিং থেকেও। গতকাল শুক্রবার অনুষ্টিত আর্চারী ডিসিপ্লিনে কোনও বিভাগেই শেষ আটের বাধা টপকাতে পারেনি আরচাররা। সবশেষ রিকার্ভ মিশ্র দলগত বিভাগে কোয়ার্টার ফাইনালে হেরে গেছে রোমান সানা ও নাসরিন আক্তার জুটি। জাপানের কাছে তারা হেরেছে ৫-১ সেটে।কম্পাউন্ড মিশ্র দলগত বিভাগে অসীম কুমারের সঙ্গে জুটি বেধে বন্যা আক্তার ১৫৪-১৪৯ পয়েন্টে ফিলিপাইনের কাছে হেরে গেছে।এর আগে বৃহস্পতিবার জিবিকে আর্চারি ফিল্ডে ছেলেদের ব্যক্তিগত রিকার্ভ কোয়ার্টার ফাইনালে উঠতে পারেননি রোমান। ইন্দোনেশিয়ার প্রতিপক্ষের কাছে হারেন তিনি ৬-২ সেটে। আর ইব্রাহিম শেখ চীনা প্রতিযোগীর কাছে হেরেছেন ৬-২ সেটে।মেয়েদের রিকার্ভে সেরা ৩২ এ ওঠার লড়াইয়ে ইতি খাতুন ৬-৫ সেটে ফিলিপিন্সের প্রতিযোগীর কাছে হেরে যান। এছাড়া নাসরিন ৬-২ সেটে তাজিকিস্তানের কাছে হেরে যান।

নিজের সেরাটাও পারলেন না মাবিয়া

মাবিয়া আক্তার সিমান্তের প্রস্তুতিতে ঘাটতি ছিল। ছিলেন আস্থাহীনতায়ও। দেশের অন্যতম সেরা নারী ভারোত্তোলক এশিয়ান গেমসে যাওয়ার আগে তাই শুধু নিজের ক্যারিয়ারসেরা পারফরম্যান্স করার প্রত্যাশার কথাই শুনিয়েছিলেন। কিন্তু এশিয়ার সবচেয়ে বড় ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় প্রথমবার অংশ নিয়ে নিজের সেরা পারফরম্যান্স করতে পারলেন না গত সাউথ এশিয়ান (এসএ) গেমসে স্বর্ণজয়ী এ ভারোত্তোলক।জাকার্তা-পালেমবাং এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশের একমাত্র ভারোত্তোলক ছিলেন মাবিয়া। অংশ নিয়েছিলেন ৬৩ কেজি ওজন শ্রেনীতে। গতকাল শুক্রবার ১৭৮ কেজি ওজন তুলে ৬ প্রতিযোগির মধ্যে ষষ্ঠ হয়েছেন। গত কমনওয়েলথ গেমসে মাবিয়া তুলেছিলেন ১৮০ কেজি। যা ছিল তার ক্যারিয়ারের সেরা পারফরম্যান্স। এবার আরো বড় আসরে ২ কেজি কম ওজন তুলতে পেরেছেন মাবিয়া।কমনওয়েলথ গেমসে মাবিয়া স্ন্যাচে তুলেছিলেন ৭৮ কেজি, ক্লিন অ্যান্ড জার্কে ১০২ কেজি। এশিয়ান গেমসে তিনি স্ন্যাচে তুলেছেন ৭৭ কেজি আর ক্লিন অ্যান্ড জার্কে ১০১ কেজি।

কাবাডিতে এবারও পদক শূন্য বাংলাদেশ

আগের দুই আসরে ব্রোঞ্জ পাওয়া নারী কাবাডি দলের এশিয়ান গেমস মিশন শেষ হয়েছে আগেই। বুধবার শেষ হলো পুরুষ দলের এশিয়ান গেমস। নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে দক্ষিণ কোরিয়ার কাছে ৩৮-১৮ পয়েন্টে হেরে টানা তৃতীয়বারের মতো এশিয়ান গেমস থেকে শূন্য হাতে ফিরছে বাংলাদেশ।

উল্লেখ্য ১৯৯০ সালে বেইজিং এশিয়াড থেকে ২০০৬ সালে দোহা পর্যন্ত পদক নিয়েই ফিরেছিল পুরুষ কাবাডি দল। এর মধ্যে ৩ টি রৌপ্য, দুটি ব্রোঞ্জ। কিন্তু ২০১০ সালে গুয়াংজু ও ২০১৪ সালে ইনচিয়ন থেকে শূন্য হাতে ফেরে কাবাডি দল। ব্যর্থতার ধারায় এবার ইন্দোনেশিয়া থেকে ফিরছে কাবাডি। পুরুষরা না পারলেও সর্বশেষ দুই আসরে মেয়েরা ব্রোঞ্জ জিতে বাংলাদেশের নাম রেখেছিল কাবাডির পদক তালিকায়। এবার আম-ছালা দুটিই গেছে বাংলাদেশের। মেয়েদের পর পুরুষদের গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায়ের মধ্যে দিয়ে দেশের কাবাডির করুণ চিত্রই ফুটে উঠলো।

 এবারের এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশ ছিল ‘এ’ গ্রুপে।প্রথম ম্যাচে ভারতের কাছে ৫০-২১ পয়েন্টে হারার পর থাইল্যান্ডকে ৩৪-২২ পয়েন্টে ও শ্রীলংকাকে ২৯-২৫ পয়েন্টে হারায় বাংলাদেশ। শেষ ম্যাচে কোরিয়ার কাছে শোচনীয়ভাবে হেরে মাসুদ-জাকিররা শেষ করে এশিয়ান গেমস মিশন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ