ঢাকা, শনিবার 25 August 2018, ১০ ভাদ্র ১৪২৫, ১৩ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য গ্রেনেড হামলা বিচারে প্রভাব ফেলবে

 

স্টাফ রিপোর্টার : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচারে প্রভাব ফেলবে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গত বুধবার পবিত্র ঈদুল আযহার দিন শেরেবাংলা নগরে জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা জানানোর পর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি তার এ শঙ্কার কথা জানান। এর আগে মঙ্গলবার (২১ আগস্ট) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক অনুষ্ঠানে বলেন, ‘২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান সরাসরি জড়িত।’ ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী মহাসমাবেশে গ্রেনেড হামলায় ২৪ জন নেতাকর্মী মারা যান। দীর্ঘ ১৪ বছর আইনি প্রক্রিয়া শেষে মামলার রায় অপেক্ষমাণ রেখেছেন আদালত।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া বক্তব্য প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, রায় সামনে রেখে যখন রাষ্ট্রের চিফ এক্সিকিউটিভ এ ধরনের একটা কথা বলেন, তখন বিচারকদের পক্ষে ন্যায়বিচার করা অসম্ভব হয়ে যায়। আমরা মনে করি, প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্য গ্রেনেড হামলা বিচারে প্রভাব ফেলবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টু, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, কেন্দ্রীয় নেতা আজিজুল বারী হেলাল, নাজিম উদ্দীন আলম, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশার প্রমুখ।

এদিকে নীলফামারীর সৈয়দপুর বিমানবন্দরে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফকরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, কথা দিয়ে কথা না রেখে জনগণের সাথে প্রতারণা করা আওয়ামী লীগের চিরাচরিত স্বভাব। নির্বাচনে জনগণের আশা আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন হতে হবে কিন্তু আওয়ামী লীগের নির্বাচন মানেই প্রহসনের নির্বাচন। ঈদের পর দিন বৃস্পতিবার সকালে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে সাংবাদিদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, নির্বাচন করার মতো পরিবেশ আওয়ামী লীগকেই তৈরি করতে হবে। এই সরকারের আমলে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হয়নি। তার প্রমাণ হলো সিটি নির্বাচনগুলোতে ভোটের কারচুপি মহাউৎসব। আলাপ আলোচনার মধ্যেই সব সমস্যার সমাধান হবে বলে বিএনপি মনে করে। জনগণ ভোট দিতে না পারলে সে ভোট আর ভোট নয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সৈয়দপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র আমজাদ হোসেন সরকার, দিনাজপুর জেলা বিএনপির যুগ্ম-আহবায়ক ও সাবেক এমপি আকতারুজ্জামান মিয়া, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি শাহিন আখতার শাহিন প্রমুখ। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ