ঢাকা, শনিবার 25 August 2018, ১০ ভাদ্র ১৪২৫, ১৩ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সরাইলে দুই গোষ্ঠীর লোকদের সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক॥ গ্রেফতার ১২

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে মাছ বিক্রির জন্য বসার জায়গার দখলকে কেন্দ্র করে সাবেক ও বর্তমান ইউপি সদস্যের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে উভয়পক্ষের মহিলাসহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে। এ সময় প্রতিপক্ষের কয়েকটি ঘর ভাংচুর ও লুটপাট করা হয়। সংঘর্ষে মহিলাসহ ৫জন গুলিবিদ্ধ হয়। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলা সদরের বেপারীপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় দুইজনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালে পুলিশ ইউপি সদস্য মো. শাহ আলম মিয়া এবং বৃহস্পতিবার গভীররাতে অভিযান চালিয়ে উভয় পক্ষের মহিলাসহ ১২ জনকে গ্রেপ্তার করে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ৫/৬ শত লোককে আসামী করে মামলা দায়ের করে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, ঈদ-উল-আযহার পরদিন বৃহস্পতিবার সকালে সরাইল সকাল বাজারে মাছ বিক্রির বসার জায়গাকে কেন্দ্র করে বেপারী পাড়ার  সাবেক  ইউপি সদস্য 

আবু বকর সিদ্দিক ওরফে রকেট মিয়ার গোষ্ঠীর সাচ্চু মিয়া ও বর্তমান ইউপি সদস্য শাহআলম মিয়ার গোষ্ঠীর কাদির মিয়ার মধ্যে হাতাহাতি হয়। এ ঘটনার জের ধরে বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে উভয় গোষ্ঠীর সহ¯্রাধিক লোক দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে সরাইল-অরুয়াইল সড়কের উপর সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষ চলাকালে প্রতিপক্ষের ৫/৬ টি বসতঘর ভাংচুর ও লুটপাট করে দাঙ্গাবাজরা। সংঘর্ষের কারনে সড়ক বন্ধ হয়ে যাওয়ায় উভয় দিকে শতাধিক সিএনজি চালিত অটোরিকশা আটকা পড়ে। ফলে দুর্ভোগ পোহাতে হয় যাত্রীদের। খবর পেয়ে সরাইল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে ব্যর্থ হলে জেলা সদর থেকে এক প্লাটুন দাঙ্গা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে। পরে পুলিশ ৮৬ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ৮ রাউন্ড টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। দেড় ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মফিজ উদ্দিন ভূইয়া, এস.আই মুজিবুর রহমান (২), কন্সটেবল নাজমুল আলম, আবদুর রউফ ও নায়েক মিঠুন সহ উভয় পক্ষের অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়। আহতদের মধ্যে সাচ্চু মিয়া ও শুক্কুর মিয়াকে ঢাকায় প্রেরন করা হয়। অন্যরা সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও জেলা সদরের বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিকে ভর্তি ও চিকিৎসা নেয়। সংঘর্ষ চলাকালে পুলিশ ইউপি সদস্য শাহ আলম মিয়াকে এবং সাবেক ইউপি সদস্য রকেট মিয়ার ছেলে রাকিব মিয়াকে আটক করে। বৃহস্পতিবার গভীররাতে বেপারী পাড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে পুলিশ মহিলাসহ ১২ জনকে গ্রেপ্তার করে। এ ঘটনায় সরাইল থানার এস.আই মজিবুর রহমান বাদী হয়ে ৭৪ জনের নাম উল্লেখপূর্বক অজ্ঞাতনামা আরো ৫/৬শত লোকের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। এ ব্যাপারে সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার (সরাইল সার্কেল) মোঃ মনিরুজ্জামান ফকিরের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত আছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ