ঢাকা, শনিবার 25 August 2018, ১০ ভাদ্র ১৪২৫, ১৩ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রামগঞ্জে যৌতুকের শিকার গৃহবধূ মৌসুমীর মৃত্যু

রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) সংবাদদাতা: লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার শৈরশৈই গ্রামের দাই বাড়িতে যৌতুকের দাবীতে নির্যাতিত মৌসুমি ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার রাত ১২টায় না ফেরার দেশে চলে যায়। ঘাতক স্বামী ইমাম হোসেনের ফাঁসী দাবীতে ফুসে উঠেছে স্থানীয় এলাকাবাসী। এছাড়াও রামগঞ্জ উপজেলাসহ দেশ-বিদেশে ফেসবুকে সংবাদটি ভাইরাল হয়েছে। মৌসুমী চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার পিতা বাদী হয়ে রামগঞ্জ থানা লিখিত অভিযোগ করেন। 

সূত্রে জানায়, উপজেলার শৈরশৈই গ্রামের আবুল কালামের মাদকাসক্ত ছেলে ইমাম হোসেন চলতি মাসের ৩রা আগস্ট বৃহস্প্রতিবার রাতে মাদকাসক্ত অবস্থায় বসতঘরে প্রবেশ করে পূর্ব থেকে দাবিকৃত যৌতুকের টাকা না দেওয়ায় মৌসুমিকে মারধর করে। এক পর্যায়ে স্টিলের টর্চ লাইট দিয়ে মাথায় একাধিকবার আঘাত করায় মৌসুমীর মাথা ফেটে রক্তক্ষরণ হয়ে তিনি জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে লুটে পড়ে। 

শশুর আবুল কালাম, স্বামী ইমাম হোসেন মৌসুমিকে রামগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালের সিসিওতে ভর্তি করে ঘাতক স্বামী ইমাম হোসেন, শশুর আবুল কালাম পালিয়ে যায়। মৌসুমীকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি সংবাদ পেয়ে মৌসুমীর স্বজনেরা মেডিকেলে গিয়ে তাকে চিকিৎসার ১২দিন পর বুধবার রাতে মৌসুমী মারা যান। 

 মৌসুমীর বাবা ছিদ্দিক মিয়া জানান তিনি একজন দিন মজুর।  উন্নত চিকিৎসাও প্রয়োজনীয় ঔষধের অভাবে মৌসুমীর মৃত্যু হয়েছে। মৌসুমীর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার শশুর আবুল কালামকে একাধিকবার চেয়ারম্যান, মেম্বার মাধ্যমে অনুরোধ করার পরও মৌসুমিকে চিকিৎসা খরছ কিংবা দেখতে যায়নি। 

মৌসুমীকে গত দু’বছর আগে ইমাম হোসেন বিয়ে করেন। তাদের এক বছরের একটি শিশু পুত্র রয়েছে। মৌসুমির পিতা আবুল কালাম ঘটনাটি স্বীকার করে বলেন মামলা না করে দু’পক্ষের সমঝোতার কথা বলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ