ঢাকা, রোববার 26 August 2018, ১১ ভাদ্র ১৪২৫, ১৪ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ট্রাম্পের নির্দেশে বাতিল পম্পেওর উত্তর কোরিয়া সফর

২৫ আগস্ট, বিবিসি : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশ পাওয়ার পর দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রী মাইক পম্পেও চলতি সপ্তাহে উত্তর কোরিয়া যাওয়ার পরিকল্পনা বাতিল করেছেন।

পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণে পিয়ংইয়ংয়ের কর্মকা-ে অসন্তুষ্ট হয়ে ট্রাম্প তার পররাষ্ট্র মন্ত্রীকে যাত্রা বাতিলের নির্দেশ দেন।

শুল্ক নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বিবাদের জেরে চীন উত্তর কোরিয়ার ওপর যথেষ্ট চাপ দিচ্ছে না বলেও টুইটারে ইঙ্গিত দিয়েছেন ট্রাম্প। বলেছেন, বেইজিংয়ের সঙ্গে বিরোধ মেটার পর পিয়ংইয়ংয়ের সঙ্গে কূটনৈতিক তৎপরতা বাড়ানোয় ওয়াশিংটন ফের মনোযোগী হবে।

সিঙ্গাপুরে জুনের ঐতিহাসিক বৈঠকের পর উত্তর কোরিয়া এরই মধ্যে পুঙ্গি রি-র পারমাণবিক পরীক্ষা কেন্দ্র ও একটি রকেট উৎক্ষেপণ কেন্দ্র ভেঙে ফেলেছে। কোরীয় যুদ্ধে নিহত মার্কিন সৈন্যদের দেহাবশেষও ফেরত পাঠিয়েছে তারা।ট্রাম্প প্রশাসন পিয়ংইয়ংয়ের এসব পদক্ষেপকে স্বাগত জানালেও মার্কিন গোয়েন্দাদের ধারণা, উত্তর কোরিয়া গোপনে তাদের আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রের নির্মাণ কাজ অব্যাহত রেখেছে।পম্পেওর আগের সফরের অর্জন নিয়েও পরষ্পরবিরোধী তথ্য মিলেছিল। নিরস্ত্রীকরণ বিষয়ে পিয়ংইয়ংয়ের সঙ্গে আলোচনায় অগ্রগতি হয়েছে সফর শেষে দাবি করেছিলেন মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী। অন্যদিকে উত্তরের শীর্ষ কর্মকর্তারা বলেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্র একতরফাভাবে কেবল নিজেদের স্বার্থ আদায় করে নিতেই তৎপর।সানতোসা দ্বীপে ট্রাম্পের সঙ্গে উত্তরের শীর্ষ নেতা কিম জং উনের বৈঠকের অগ্রগতি নিয়ে আগে থেকেই সন্দেহ প্রকাশ করে আসছিলেন পশ্চিমা বিশ্লেষকরা। কিভাবে ও কতদিনের মধ্যে পিয়ংইয়ং তার পারমাণবিক কর্মসূচি বন্ধ করবে ঐতিহাসিক বৈঠকের সমঝোতায় তার কোনো উল্লেখ না থাকায় কোরীয় উপদ্বীপের পূর্ণাঙ্গ নিরস্ত্রীকরণ সম্ভব হবে কিনা তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছিলেন তারা।এবারের সফরে পম্পেওর সঙ্গে ফোর্ডের অবসরপ্রাপ্ত নির্বাহী স্টিফেন বিয়েগানেরও যাওয়ার কথা ছিল। বিয়েগানকে সম্প্রতি উত্তর কোরিয়া বিষয়ক দূত হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে মার্কিন প্রশাসন।শুল্ক নিয়ে মার্কিন-চীন মুখোমুখি অবস্থানের কারণেও পিয়ংইয়ংয়ের ওপর চাপ বাড়ানোর মার্কিন পরিকল্পনা খানিকটা ধাক্কা খেয়েছে বলে ধারণা পর্যবেক্ষকদের। অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিকভাবে বেইজিং-ই উত্তর কোরিয়ার সবচেয়ে বড় মিত্র।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ