ঢাকা, রোববার 26 August 2018, ১১ ভাদ্র ১৪২৫, ১৪ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বেনাপোল ইমিগ্রেশন দিয়ে নির্বিঘ্নে যাত্রী চলাচলে রাজস্ব আয় বৃদ্ধি 

বেনাপোল সংবাদদাতা : আন্তর্জাতিক বেনাপোল ইমিগ্রেশান দিয়ে ভারত-বাংলাদেশ যাতায়াতকারী পাসপোর্ট যাত্রীরা দালালমুক্ত পরিবেশে সারিবদ্ধভাবে শৃংখলার সাথে আসা যাওয়া করছে। দাগি আসামী কিংবা কোন অপরাধীরা যাতে কোন রকম পালিয়ে যেতে না পারে তার জন্য রয়েছে ক্লোজসার্কিট ক্যামেরা এবং প্রতি যাত্রীর পাসপোর্ট কম্পিউটার দ্বারা পরীক্ষানিরীক্ষাপূর্বক তার যাবতীয় তথ্য সংরক্ষণ করা হচ্ছে।

ওসি তরিকুল ইসলাম ইমিগ্রেশানে যোগদান করার পর থেকে এসআই ফজলুর রহমান, এসআই সাইফুল ইসলাম, এসআই হোসেন আলী, এসআই খাইরুল ইসলাম, আনিছুর রহমান, রবিউল ইসলাম পলাশ, সিরাজুল ইসলাম, মমিনুল ইসলাম, শাহিন আলম, সহিদুল ইসলাম ছাড়াও এএসআইগণ দালালমুক্ত ব্যাপারে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। 

ওসি তরিকুল ইসলাম জানান, এখানকার নিয়ম শৃংখলা আগের তুলনায় অনেক ভালো। দুর্নীতি বন্ধে সবার সহযোগিতা দরকার। আগের তুলনায় এ সীমান্তপথে যাত্রীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। যার কারণে সরকারি রাজস্ব আয়ও বৃদ্ধি পেয়েছে। গড়ে প্রতিদিন ২ হাজার ৫শ’ থেকে ৩ হাজার যাত্রী এ পথ দিয়ে ভারত-বাংলাদেশ যাতায়াত করছে। এ নিয়ে গত ৫ দিনে ১৩ হাজার ৫শ’ পাসপোর্টযাত্রী বাংলাদেশ থেকে ভারতে গেছে। প্রতিদিন রাজস্ব আদায় হয়েছে ১২ থেকে ১৫ লক্ষ টাকা। এ নিয়ে গত ২১ থেকে ২৫ আগষ্ট পর্যন্ত ৫ দিনে পৌনে এক কোটি টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে। এ ছাড়া বিশেষ বিশেষ দিনে বা সরকারি ছুটির দিনে রাজস্ব আয় আরও বৃদ্ধি পেয়ে থাকে। কাস্টমস-ইমিগ্রেশন ভবনে পূর্বে যেভাবে বহিরাগত দালাল কিংবা ছিনতাইকারীদের আনাগোনা ছিল তা একেবারেই নেই। পুলিশ কনস্টেবলদের রাখা হয়েছে ভবনের চারপাশে কঠোর অবস্থায়। যাতে পাসপোর্ট যাত্রী ছাড়া অন্য কেউ প্রবেশ করতে না পারে। 

শনিবার (২৫ আগষ্ট) বেনাপোলের গয়ড়া গ্রামের আইয়ুব হোসেন, ঢাকার নিরঞ্জন পাল, ববিতা রানী, শরিয়তপুরের সুবল দাস, হযরত আলী, বরিশালের কার্তিক ঘোষ, শিউলি ঘোষ, খুলনার অলোক রায়, বিপরা মানিকসহ অনেকে পাসপোর্টে ভারতে যাবার সময় তারা নিয়ম-শৃংখলা দেখে সন্তোস প্রকাশ করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ