ঢাকা, রোববার 26 August 2018, ১১ ভাদ্র ১৪২৫, ১৪ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

লৌহজংয়ে মাদক সেবনকারীদের হামলায় নিহত ১

লৌহজং (মুন্সীগঞ্জ) সংবাদদাতা : মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে মাদক সেবককারীদের হামলায় সিরাজ শেখ (৫৭) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে সে মারা যায়। এ ঘটনায় আরো দু ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়েছে। নিহত ব্যক্তি ২ নং খড়িয়া গ্রামের মৃত মোজাফর শেখের পুত্র। আহত হলো একই গ্রামের সামাদ শিকদারের ছেলে রাজন শিকদার (১৯) ও মৃত মুজিবুর মুন্সীর ছেলে জিয়াউর রহমান জিয়া (২৫)।

ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রত্যক্ষদর্শীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, গত বুধবার ঈদের দিন সন্ধ্যায় খড়িয়া গ্রামের পাশে পদ্মা নদীর পারে ওটি আল-মামুন-৫ নামক একটি তেলের জাহাজ ভিড়ানো ছিলো। সেখানে কিছু ছেলেরা মাদক সেবন করছিলো। ইমরান হোসেন (১৮), রবিন মোল্লা (১৮), আমিনুল ইসলাম (১৭), রাব্বি হোসেন (১৮) নামের মাদক সেবনকারী সেখানে গিয়ে মাদক সেবক করছিলো। এ সময় জাহাজে একটা বড় লাইট জ্বালানো থাকায় তাদের মাদক খেতে সমস্যা দেখা দেয়। সে জন্য তারা লাইটটা খোলার জন্য চেষ্টা করে এবং লাইট খুলতে দেখে জাহাজের কর্মরত স্টাফ আক্তার হোসেন, মিজানুর রহমান ও বাবুর্চী বাবুল হাজী লাইটটি খুলতে বাধা দেয় ও তাদের সেখান থেকে চলে যেতে বলে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে মাদক সেবনকারীরা তাদের মারধর করে। এ সময় তাদের ডাক চিৎকারে স্থানীয় কিছু লোক এগিয়ে এসে বাধা দিলে এ পর্যায়ে তাদের উপরেও হামলা করে মাদকসেবীরা। এতে তিনজন গুরুতর আহত হয়। পরে  সিরাজ শেখ চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে গত বৃহস্পতিবার রাতে মারা যায়। অপর দু’জন আহত অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, ২ নং খড়িয়া গ্রামের প্রায় ৫০/৬০ জন ছেলে খবর পেয়ে দল বেঁধে আসে। এবং তাদের হাতে গরু জবাই করার ছুরি, চাপাটিসহ অনেক ধারালো অস্ত্র ছিলো। এগুলো দিয়েই হামলা করেছে তারা। দুপক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটিতেই এ মারামারি হয়েছে।

ওটি আল-মামুন-৫ তেলের জাহাজের মাস্টার সাদেকুল ইসলাম বলেন, আমাদের জাহাজে কিছু স্থানীয় ছেলে পেলে এসে মাদক (ইয়াবা) খাচ্ছিলো এবং আমাদের কাজের জিনিস পত্র নাড়াচারা করছিলো। আমার স্টাফ আক্তার হোসেন, মিজানুর রহমান ও বাবুর্চী বাবুল হাজী জাহাজের একটি লাইট খুলতে বাধা দেয় এবং তাদের সেখান থেকে চলে যেতে বলে। সে কথার কারণে তারা আমরা স্টাফের উপরে হামলা চালিয়ে এলোপাথারী মারধর করতে শুরু করে। তারপর আমাদের লোকজন চিৎকার করায় স্থানীয় কিছু মানুষ এগিয়ে আসে। তাদের উপরও মাদক সেবককারীদের কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে হামলা করে।

 লৌহজং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লিয়াকত আলী ঘটনা সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মামলা হয়েছে তদন্ত চলছে। আমরা তদন্ত সাপেক্ষে  ব্যবস্থা নিচ্ছি।

পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

মুন্সীগঞ্জ লৌহজংয়ে পানিতে ডুবে মো. ইব্রাহিম মাদবর (২) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের সাতঘড়িয়া গ্রামের মৃধা বাড়ির সাথে চকে (জমিতে) এ ঘটনাটি ঘটে। সাতঘড়িয়া গ্রামের মো. শাহিন মাদবরের ছোট ছেলে ইব্রাহিম।  

পরিবারিক সূত্রে জানা যায়, ঘরের সাথেই পানির নীচে জমি। তাই কাজ করার জন্য একটা কাঠের ঘাট বানানো হয়েছে। এ সময়ে বাড়ির সবাই রান্না ও অন্যান্যা কাজে ব্যস্ত ছিলো। আর এ সময় বাহিরে খেলা করছিলো ইব্রাহিম। হঠাৎ নিহত ইব্রাহিমের ফুপু রাশি বেগম ঘাটে গিয়ে দেখতে পায় ইব্রাহিম পানিতে ভাসছে। তখন তাকে পানি থেকে উঠিয়ে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ