ঢাকা, সোমবার 27 August 2018, ১২ ভাদ্র ১৪২৫, ১৫ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

হাটহাজারীর এিপুরা পল্লীতে অজ্ঞাত রোগে ৪ শিশুর মৃত্যু ॥ গুরুতর অসুস্থ ২১

চট্টগ্রাম ব্যুরো :  চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারীর ত্রিপুরা পাড়ায় গত ৬ দিনে অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে একই পরিবারের তিনজনসহ ৪ শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া আরও ২১ শিশুকে হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে একের পর এক শিশু মৃত্যুর ঘটনায় ত্রিপুরা এলাকার পরিবারগুলোর মধ্যে চরম আতংক দেখা দিয়েছে।

হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূএের খবর, হাটহাজারীর এক নম্বর ফরহাদাবাদ এলাকার সোনাই-ত্রিপুরা পাড়া থেকে মঙ্গলবার (২১ আগস্ট) থেকে রোববার (২৬ আগস্ট) পর্যন্ত ২১ শিশুর জ্বর ও শরীরে ছোট ছোট দাগ নিয়ে ভর্তি করা হয়। এর মধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হলেও বাকি ১৮ জন সুস্থ আছে। তবে যে চার শিশু মৃত্যুর কথা বলা হচ্ছে তারা সবাই বাড়িতেই মৃত্যুবরণ করেছে। 

সূত্রের খবর, চিকিৎসকরা জানতে পারেনি আসলে কী রোগে আক্রান্ত তারা। ইতোমধ্যে ঢাকায় পাঠানোর জন্য কয়েকটি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। মৃত্যু হওয়া একই পরিবারের তিনজন হলো অন্ন রায় (৫), সুমা রায় (৩) ও অন্ন বালা (৭)। তারা এক নম্বর ফরহাদাবাদ দক্ষিণ উদারীয়া এলাকার শাম কুমার চাকমার মেয়ে। 

মৃতদের পরিবারের লোকজন জানায়, হঠাৎ করে শনিবারের (১৭ আগস্ট) দিকে একই পরিবারের তিন বোনের গাঁয়ে জ্বর উঠে। কয়েকদিন পর পুরো শরীরে কালো কালো দাগও পড়ে। মঙ্গলবার (২১ আগস্ট) দুপুরের দিকে অজ্ঞান হয়ে পড়ে অন্ন রায়। পরে চিকিৎসকরা বেঁচে নেই বলে জানান। পরে শুক্রবার মারা যায় সোমা রায়। সর্বশেষ  রোববার  সকাল ৮টায় মারা যায় অন্ন বালা। আরেকজন শিমুনী ত্রিপুরা (৩) একই এলাকার রমেশ চাকমার মেয়ে। 

চট্টগ্রাম জেলার সিভিল সার্জন ডাঃ আজিজুর রহমান হাটহাজারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসেন,  রোগীদের সাথে কথা বলেছেন এবং নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকা পাঠিয়েছেন। রিপোর্ট পাওয়ার পর সেই রোগ সম্পর্কে জানা যাবে।

এর আগে গত বছরের জুলাই মাসে পার্শ্ববতী সীতাকু-ের ত্রিপুরা পাড়ায় অজ্ঞাত রোগে ৯ শিশুর মৃত্যু হয়। পরে অবশ্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং সিভিল সার্জন আলাদা আলাদা তদন্ত কমিটি গঠন করে জানানো হয় হামে আক্রান্ত হয়ে ৯ শিশুর মৃত্যু হয়েছিল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ