ঢাকা, সোমবার 27 August 2018, ১২ ভাদ্র ১৪২৫, ১৫ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

বেনাপোল সংবাদদাতা : পবিত্র ঈদ উপলক্ষে টানা পাঁচ দিন বন্ধ থাকার পর রোববার সকাল থেকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে দু’দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য শুরু হয়েছে পুরোদমে। বন্দরে ফিরে এসেছে প্রাণ চাঞ্চল্য । আমদানি-রফতানি শুরুর পর যথারীতি বন্দরে পণ্য খালাশ ও লোড আনলোড ছলছে। আমদানি পণ্য খালাসে ব্যস্ত সময় পার করছেন ব্যবসায়ীরা। আমদানি-রফতানি বাণিজ্যের সঙ্গে সম্পৃক্ত কাস্টমস, বন্দর, সিঅ্যান্ডএফ, ট্রান্সপোর্ট, ব্যাংক অফিস খুলেছে এবং এসব প্রতিষ্ঠানের অধিকাংশ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কর্মস্থলে যোগ দিয়েছেন। বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টমস রাজস্ব কর্মকর্তা মৃনাল কান্তি জানান, ছুটি শেষে কাস্টমস হাউজের প্রতিটি শাখায় অফিসিয়াল কার্যক্রম শুরু হওয়ায় ব্যততা বেড়েছে। তিনি আরও জানান, সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত ভারত থেকে ১৭০ ট্রাক আমদানি পণ্য বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করেছে। ভারতে রফতানি হয়েছে ৬৩ ট্রাক। বেনাপোল স্থলবন্দরের পরিচালক আমিনুল ইসলাম জানান, সরকারি ছুটি শেষে দু দেশের মধ্যে আমদানি রফতানি বাণিজ্য শুরু হয়েছে। বন্দরে আটকে থাকা পণ্য দ্রত খালাসের জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে নিন্দেশ দেওয়া হয়েছে। বন্দর সূত্রে জানায় বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারত থেকে বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠান ও গার্মেন্টস ইন্ডাস্ট্রিজ’র শতকরা ৮০ ভাগই কাচামাল আমদানি হয় এ বন্দর দিয়ে। বেনাপোল বন্দর থেকে ভারতের কলকাতা শহরের দূরত্ব মাত্র ৮২ কিলোমিটার। আড়াই থেকে তিন ঘণ্টায় একটি আমদানি ট্রাক কলকাতা থেকে পণ্য নিয়ে বেনাপোল বন্দরে পৌঁছাতে সক্ষম হয়। বেনাপোল কাস্টমস হাউসের সহকারী কমিশনার উওম কুমার জানান, বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারত থেকে ৩’শ থেকে ৪’শ ট্রাক পণ্য আমদানি হয়। ভারতে রফতানি ২’শ ট্রাক পণ্য। বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠানের কাঁচামালের পাশাপাশি বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্যও আসে এ বন্দর দিয়ে। যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হওয়াতে বেনাপোল বন্দর ব্যবহারে বরাবরই আগ্রহ রয়েছে ব্যবসায়ীদের। প্রতিবছর এ বন্দর থেকে প্রায় ৭ হাজার কোটি টাকার রাজস্ব আয় করে সরকার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ