ঢাকা, সোমবার 27 August 2018, ১২ ভাদ্র ১৪২৫, ১৫ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য এবার প্রস্তুত হচ্ছে বাংলাদেশ

স্পোর্টস রিপোর্টার : আর মাত্র আটদিন পরই ঢাকায় সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের ১২তম আসরের পর্দা উঠতে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে আগামী ৪ থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত হবে ৭ জাতির সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ। যেখানে বাংলাদেশ খেলবে গ্রুপ ‘এ’ তে। তাদের সঙ্গী নেপাল, পাকিস্তান ও ভুটান। ‘বি’ গ্রুপে রয়েছে ভারত, শ্রীলংকা ও মালদ্বীপ। পাকিস্তান ও নেপালের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে আসর। উদ্বোধনী দিনেই দ্বিতীয় ম্যাচে ভুটানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করবে বাংলাদেশ। শেষ তিন আসরে ভরাডুবি হলেও ঘরের মাঠে ভালো করার প্রত্যয় বাংলাদেশের। এশিয়াডের ফলাফল সেই আশায় আরো বেশি জ্বালানী দিতে বাধ্য। ২০০৩ সালে প্রথমবার সাফের আয়োজক হয়েই শিরোপা জিতেছিল বাংলাদেশ। ২০০৯ সালে দ্বিতীয়বার সেটি না পারলেও এবার অন্তত বাংলাদেশকে চ্যাম্পিয়ন দেখতে চায় দর্শকরা। সেটি পারলে পথহারা ফুটবল পথে ফেরার রসদ পাবে নিশ্চয়ই।এশিয়ান গেমসের সফল মিশন শেষে ফুটবলাররা এখন প্রস্তুত হচ্ছে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য।ঘরের মাঠে সাফ ফুটবলকে সামনে রেখে দীর্ঘ মেয়াদে প্রস্তুতি নিয়ে আসছেন ফুটবলাররা। দেশের বাইরে কন্ডিশনিং ক্যাম্প করেছে কয়েক ধাপে। এমনকি এশিয়ান গেমসকেও সাফের প্রস্তুতি হিসেবেই বেছে নিয়েছিল বাংলাদেশ দলের টিম ম্যানেজম্যান্ট। এশিয়াড শেষ করে দেশে ফিরে তাই সাফের জন্য তৈরি হওয়ার পরিকল্পনা ছিল বাংলাদেশ দলের। 

সেই পরিকল্পনা শতভাগ সফলই হয়েছে তাদের। এশিয়াডে ইতিহাস গড়ে তবেই দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ ফুটবল দল। এশিয়াডের ইতিহাসে বাংলাদেশ আগে কখনো দ্বিতীয় পর্বে খেলতে পারেনি। এবার উজবেকিস্তান, থাইল্যান্ড ও কাতারের গ্রুপে থেকে বড় কিছু ভাবেনি বাংলাদেশ। কিন্তু নিজেদের কল্পনার সীমা ছাড়ানো সাফল্য এসেছে ইন্দোনেশিয়ায় অনুষ্ঠিত আসরে। উজবেকিস্তানের বিপক্ষে ৩-০ গোলে হারলেও থাইল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচে ১-১ গোলে ড্র করে বাংলাদেশ। এরপর কাতারকে ১-০ গোলে হারিয়ে এশিয়াডের শেষ ষোলোতে নাম লেখায় জেমি ডের দল। গ্রুপ পর্ব শেষ করে সাফের প্রস্তুতির জন্য দ্রুত দেশে ফিরতে আগাম টিকিট কেটে রাখলেও সেটি বাতিল করতে হয় বাংলাদেশ দলকে। উত্তর কোরিয়ার বিপক্ষে ঐতিহাসিক ম্যাচে ৩-১ গোলে হারলেও অবশ্য এশিয়াড থেকে সাফের জন্য দারুণ রসদই পেয়েছে জামাল ভূইয়ারা। এশিয়াড শেষ করে শনিবার রাতেই ফুটবলারদের একটি অংশ দেশে ফিরেছে। 

দ্বিতীয় ধাপে রোববার ফিরছে অবশিষ্টরা। ফিরেই সাফের মিশনে নেমে পড়তে হবে তাদের। ২৯ আগস্ট শ্রীলংকার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। নীলফামারিতে অনুষ্ঠিত সেই ম্যাচের জন্য গতকাল রাতেই ঢাকায় আসে শ্রীলংকা ফুটবল দল। এশিয়াডে মূলত অনূর্ধ্ব-২৩ দলের সঙ্গে সিনিয়র কোটায় জাতীয় দলের ৩ জন খেলতে পেরেছেন। ফলে জাতীয় দলের বেশ কয়েকজনের ম্যাচ খেলার ঘাটতি থাকছে। সেটি পোষাতেই অনেক আগেই এই প্রীতি ম্যাচ চেয়েছিলেন বাংলাদেশ দলের ইংলিশ কোচ জেমি ডে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ