ঢাকা, সোমবার 27 August 2018, ১২ ভাদ্র ১৪২৫, ১৫ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সাবেক প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের মামলা

আফজাল হোসেন, (ফুলবাড়ী): ফুলবাড়ী উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের দৌলতপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক কতৃক বিদ্যায়ের ৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে আদালতে মামলা দায়ের। ফুলবাড়ী উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়ন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো: আজিজার রহমান এর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত-৫, ফুলবাড়ী দিনাজপুরে দায়ের কৃত মামলার বিবরণে জানা যায়, দৌলতপুর ইউনিয়ন বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক, প্রধান শিক্ষক মো: মমিনুল ইসলামের অনুপস্থিতিতে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ গত ০৩/০২/২০১৫ ইং তারিখে ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্তে মামলার বাদী মো: আজিজার রহমান কে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব প্রদান করেন। ০৪/০২/২০১৫ ইং তারিখের অনুমোদিত ম্যানেজিং কমিটি দায়িত্ব গ্রহণের পর সাময়িক বরখাস্থকৃত প্রধান শিক্ষক মো: মুমিনুল ইসলাম সরকার কে বিদ্যালয়ের আয় ব্যায়ের হিসাব সম্পর্কিত আলোচনা করার জন্য ম্যানেজিং কমিটির আলোচনা সভা আহ্ববান করার জন্য মো: তৈয়বুর রহমান লাইজু বহুবার তাগাদা দেওয়া স্বত্বেও উক্ত সাবেক প্রাধান শিক্ষক টাল বাহানা করে সময় অতিবাহিত করেন। দাতা সদস্য মো: আব্দুল গফ্ফার ও শিক্ষক প্রতিনিধি আব্দুল মজিদ সরকার বিদ্যালয়ের নামীয় বর্ণিত ব্যাংক একাউন্ট যাচাই বাছাই  করে টাকা আত্মসাতের বিষয়টি নিশ্চিত হন। জনতা ব্যাংক লিমিটেড ফুলবাড়ী বাজার শাখায় বিদ্যালয়ের নামিয় সঞ্চয়ী হিসাব নং- ০৮৫৪-০৩১০০২৫১৩৭ নং হিসাব থেকে ২৩/১২/২০১৪ ইং তারিখে ডি৬৯৪৯৯৯৭ নং চেক দ্বারা ২৫ হাজার টাকা এবং সোনালী ব্যাক লিমিটেড ফুলবাড়ী শাখাায় বিদ্যালয়ের নামীয় সঞ্চয়ী হিসাব নং এ/সি ১৮২৩৩৪০৭৫৬৬২ হিসাবে সাবেক প্রধান শিক্ষক মুমিনুল ইসলাম সরকার ০৭/০৭/২০১৩ ইং তারিখে এসবি ৯০৭৫০৪৪ নং চেক মূলে ১ লাখ ৫০ হাজার ০৫/০৮/২০১৩ ইং তারিখে এসবি ৯০৭৫০৪৫ নং চেক মূলে ৫৮ হাজার ৫ শত টাকা ০৬/১০/২০১৩ ইং তারিখে এসবি ৯০৭০০৪৫ নং চেক মূলে ৫০ হাজার টাকা ০৬/১২/২০১৩ ইং তারিখে এসবি ৯০৭৫০৪৮ নং চেক মূলে ২৫ হাজার টাকা ১৫/১২/২০১৩ ইং তারিখে  এসবি ৯০৭৫০৪৯ নং চেক মূলে ২৫ হাজার টাকা, ০২/০১/২০১৪ ইং তারিখে এসবি ৯০৭৫০৫০ নং চেকে ৩০ হাজার টাকা ২৩/০২/২০১৩ ইং তারিখে এসবি ৩১৮৫৯১১ নং চেক মূলে ৫০ হাজার টাকা ০৩/০৩/২০১৪ ইং তারিখে এসবি ৩১৮৫৯১৩ নং চেক মূলে ২২ হাজার টাকা  ও ১০/১১/২০১৪ ইং তারিখে এসবি ৩১৮৫৯১৪ নং চেক মূলে ২৫ হাজার টাকা সর্বমোট ৪ লাখ ৬০ হাজার ৫ শত টাকা আত্মসাত করার অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষক (সাময়িক বরখাস্তকৃত) মো: মুমিনুল ইসলাম সরকার। তাকে গত ০৮/০৩/২০১৫ ইং তারিখ হইতে সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন। তিনি অনেক জাল স্বাক্ষর ব্যবহার করেন মর্মে প্রধান শিক্ষক ভারপ্রাপ্ত মো: আজিজার রহমান আদালতে মামলা করেন। যাহার মামলা নম্বর ১০২ সি/২০১৬ তারিখ ০৬/০৯/২০১৬। মামলা আনায়ন করেন তাহা তদন্তের জন্য চেয়ারম্যান মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড দিনাজপুর কর্তৃক বিদ্যালয়ের পরিদর্শক মো: আবুহেনা মোস্তোফা কামাল গত ৩০/০৭/২০১৮ ইং তারিখে বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন। পরিদর্শন কালে মো: মুমিনুল ইসলাম (সাময়িক বরখাস্ত) নিকট হতে তৎকালীন রেজুলেশন বহি চাইলে উক্ত রেজুলেশন বহি তাহার নিকট নাই এবং হারিয়ে গেছে বলে জানান এবং ফুলবাড়ী থানায় জিডি করিয়া রেখেছেন। উক্ত বিদ্যালয় পরিদর্শনকালে ম্যানেজিং কমিটির শিক্ষক কর্মচারি এবং অত্র এলাকার গণ্যমান্য ব্যাক্তি বর্গ উপস্থিত ছিলেন। বিদ্যালয় পরিদর্শন কালে তৎকালীন সভাপতি মো: আব্বাস আলী মন্ডল পরিদর্শকের সঠিক জবাব দিতে পারেন নাই। বিদ্যালয়ের নামিয় বর্ণিত হিসাব নং থেকে জাল জালিয়াতের মাধ্যমে টাকা উত্তোলন করার পর ম্যানেজিং কমিটিতে জানাজানি হলে তিনি উদ্দেশ্যমূলক ভাবে মিথ্যা চিকিৎসা সনদ পত্র দাখিল করে ছুটি ব্যতীত বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থকেন। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে দৌলতপুর ইউনিয় বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত শিক্ষক মো: আজিজার রহমান সাময়িক বরখাস্তকৃত শিক্ষক এর বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করতে বাধ্য হন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ