ঢাকা, বুধবার 21 November 2018, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

চট্টগ্রামে অজ্ঞাত রোগে ৪ শিশুর মৃত্যু, আক্রান্ত ২১

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার ত্রিপুরা পল্লীতে অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে চার শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সর্বশেষ রবিবার সকালে উপজেলার ১ নম্বর ফরহাদাবাদ ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডস্থ দক্ষিণ উদালিয়ার সোনাইরকুল দুর্গম ত্রিপুরা পল্লীতে অন্ন বালা ত্রিপুরা (৭) নামের এক শিশু মারা যায়।

এর আগে ২১ আগস্ট মঙ্গলবার একই এলাকায় অন্ন রায় ত্রিপুরা (৫) ২৪ আগস্ট শুক্রবার সম রায় ত্রিপুরা (৩) ও কিশা মনি ত্রিপুরা (৩) নামের দুই শিশু মারা যায়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্র আরো ২১ জনকে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের শরীরে জ্বর এবং  গুড়ি গুড়ি দাগ রয়েছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

এদিকে একের পর এক  শিশু মৃত্যুর ঘটনায় ত্রিপুরা এলাকার পরিবারগুলোর মধ্যে চরম আতংক দেখা দিয়েছে।

এ বিষয়ে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জেন আজিজুল হক ইউএনবিকে জানান, ৪টি শিশু মারা যাওয়ার খবর পেয়ে আমি হাটহাজারীর স্বাস্থ্য কেন্দ্রে যাচ্ছি। সেখানে অসুস্থ্ আরো ৮/১০ জনকে আনা হয়েছে বলে শুনেছি। তবে রোগ বিষয়ে কিছু নিশ্চিত করতে পারেননি তিনি।

সিভিজ সার্জন বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের একটি টিম আগামীকাল ঘটনাস্থলে এসে রক্ত পরীক্ষা করবে। এরপর আমরা বিস্তারিত জানাতে পারবো।

স্থানীয় ত্রিপুরা পল্লীর বাসিন্দা নয়ন বিকাশ ত্রিপুরা, বন কুমার ত্রিপুরাসহ বেশ কয়েকজন জানায়, এ দুর্গম পল্লীতে প্রায় ৫৫টি পরিবারের ৪০০ লোকের বসবাস হলেও এখানে কোনো স্বাস্থ্য কর্মী আসেন না। অনেক আগে একজন স্বাস্থ্যকর্মী এসেছিলেন মাত্র একদিন, তবে আজ পর্যন্ত আর কোনো স্বাস্থ্যকর্মী এমনকি স্থানীয় ইউপি সদস্যও খবর নেয়নি।

তারা জানায়, আরো অনেক শিশুই এ অজানা রোগে আক্রান্ত এখন। আক্রান্ত শিশুগুলোর গায়ে প্রথমে বিচি এবং পরে এক প্রকার ঘা’র মতো হয়ে সমস্ত শরীরে ছড়িয়ে পড়ে। তারপর আক্রান্ত শিশু আস্তে আস্তে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।

হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আক্তার উননেছা শিউলী সাংবাদিকদের জানান, ৪ শিশু মৃত্যুর খবরটি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তিনি তাৎক্ষণিক এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের বলেছেন।

এর আগে গত বছরের জুলাই মাসে পার্শ্ববতী সীতাকুণ্ডের ত্রিপুরা পাড়ায় অজ্ঞাত রোগে ৯ শিশুর মৃত্যু হয়। পরে অবশ্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং সিভিল সার্জন আলাদা আলাদা তদন্ত কমিটি গঠন করে জানায় যে, হামে আক্রান্ত হয়ে ওই ৯ শিশুর মৃত্যু হয়েছিল।-ইউএনবি

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ