ঢাকা, মঙ্গলবার 28 August 2018, ১৩ ভাদ্র ১৪২৫, ১৬ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

এশিয়া কাপের আগেই নতুন স্পন্সর খুঁজবে বিসিবি -সিইও

স্পোর্টস রিপোর্টার : এশিয়া কাপের বাকি নেই ১৫ দিনও। এমন অবস্থায় ক্রিকেট বোর্ডের সাথে স্পন্সরশিপ চুক্তি বাতিল করল বেসরকারি মোবাইল প্রতিষ্ঠান রবি। রবি’র এমন আচরণে বিস্মিতও বাংলাদেশ ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক এই সংস্থাটি। তবে এশিয়ার ৬ জাতির টুর্নামেন্টের আগেই নতুন স্পন্সর খোঁজার চেষ্টা করবে বিসিবি এমটাই জানিয়েছেন বিসিবির সিইও নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজন। কোনো প্রকার ঘোষণা ছাড়াই স্পন্সরশিপ চুক্তি থেকে  বেসরকারি মোবাইল প্রতিষ্ঠান রবি চলে যাওয়ায় একরকম বিপাকেই পড়ে গেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।  গতকাল বিসিবি কার্যালয়ে বিসিবির সিইও নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজন সাংবাদিকদের বলেন, ‘অবশ্যই আমাদের নতুন স্পন্সর দেখতে হবে। দু-একদিনের ভেতরেই আমরা বিজ্ঞপ্তি দেব। চেষ্টা করবো এশিয়া কাপের আগেই স্পন্সর দেয়ার জন্য।’ মূলত বিসিবির সঙ্গে চুক্তি বাতিলের পেছনে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের তিন সিনিয়র ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মুর্তজা, সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালকে দায়ী করছে রবি। তাদের ভাষ্যে, এসব ক্রিকেটাররা রবি’র সঙ্গে দলের চুক্তি থাকাকালীনই দেশের অপর দুটি বেসরকারি মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ব্যক্তিগত চুক্তিতে আবদ্ধ হয়েছেন। আর এ নিয়ে দু’পক্ষের টানপোড়েণ চলছিল বিগত বেশ কিছু দিন থেকেই। ওই তিন ক্রিকেটারকেই তাদের ব্যক্তিগত চুক্তি বাতিল করতে বিসিবি নির্দেশ দিলে তারা তাতে সম্মতিও জানায়। কিন্তু তাদের চুক্তি বাতিলের সেই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার আগেই বিসিবির সঙ্গে চুক্তি বাতিল করে রবি। যা বিসিবিকে বিস্মিত করেছে। বিষয়টি আমলে নিয়ে ভবিষ্যতে ক্রিকেটাররা যেন এমন কোন চুক্তিতে আর না যান সে বিষয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করা হবে বলে জানান বিসিবির এই  উর্ধ্বোতন কর্মকর্তা। বলেন, ‘প্লেয়াররা এখন থেকে কোন বিরোধপূর্ণ চুক্তিতে যেতে পারবে না।’ রবির সঙ্গে চুক্তি সম্পর্কে নিজামউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘রবি জাতীয় দল থেকে নিজেদের চুক্তি প্রত্যাহার করে নিয়েছে। টেলিফোন ব্র্যান্ডের সঙ্গে যুক্ত থাকা কিছু ক্রিকেটারদের নিয়ে তাদের কিছু অবজেকশন ছিল। বিভিন্ন টেলিফোন  কোম্পানির সঙ্গে ক্রিকেটারদের চুক্তির কারণেই নাকি এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। তবে আমাদের ধারণা, অন্য  কোনো কারণে তারা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমরা এই বিষয়টাকে পুরোপুরি গ্রহণ করতে রাজি নই।’ তিনি আরো জানান, ‘আপনারা জানেন যে, সাকিব আল হাসানের সঙ্গে একটা টেলিফোন কোম্পানির চুক্তি ছিল। সেটা সে ইতিমধ্যে বাতিল করেছে। তামিমের সঙ্গে ছিল, তামিমও সেটা বাতিল করেছে। আমরা একটা নিয়মের মাঝ দিয়ে ক্রিকেটারদের অন্য টেলিফোন কোম্পানির চুক্তি বাতিলের পথে এগোচ্ছিলাম। রবির সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষেই ক্রিকেটাররা টেলিফোন কোম্পানিগুলোর সাথে তাদের চুক্তি বাতিল করছিল। আমরা ভেবেছি রবি আমাদের একটু সময় দেবে। কিন্তু তারা সেটা দেয়নি। তাদের এমন সিদ্ধান্তে আমরা নিজেরাও অবাক। মাঝপথেই দুঃখজনকভাবে তারা সরে দাঁড়ায়। তারপরও বোর্ডের পক্ষ থেকে আমরা রবিকে ধন্যবাদ জানাই।’ গত বছরের জুলাই থেকে দ্বিতীয় মেয়াদে বিসিবির সঙ্গে চুক্তি করেছিল রবি। চুক্তির আওতায় শুধু ছেলেদের জাতীয় দলই নয়, ‘এ’ দল ও অনূর্ধ্ব-১৯ দলের পাশাপাশি ছিল মেয়েদের জাতীয় দলও। তবে চুক্তির বেশ কিছু শর্ত পূরণ করা, না করা নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই দুই পক্ষের সম্পর্কে টানাপোড়েন চলছিল বলে জানা গেছে। আলোচনায়ও সুরাহা  হয়নি। তারপর এই চুক্তি বাতিল হলো। বিসিবি কি তাহলে রবির বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেবে? প্রধান নির্বাহী এখনই তেমন কিছু বললেন না, ‘এখন টার্মস এন্ড কন্ডিশনে যা লেখা আছে তার মধ্যে দিয়ে যাবে। আমাদের লিগ্যাল টিমকে দিয়েছি। তারা দেখবে। এরমধ্যে আমদের যদি কোনো ক্লেইম থাকে তবে তা আমরা অবশ্যই রেইজ করব।’ আপাতত এশিয়া কাপের জন্য পৃষ্ঠপোষক খোঁজাও শুরু হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাহী। দুই এক দিনের মধ্যেই সার্কুলার চলে আসবে, জানিয়েছেন এমনটিই। দ্বিতীয় মেয়াদে বিসিবি'র সঙ্গে স্পন্সর প্রতিষ্ঠান রবি'র চুক্তির মেয়াদ ছিলো ২০১৭ সালের জুলাই থেকে ২০১৯ সালের জুন মাস পর্যন্ত। বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন  চৌধুরী বলেন, ‘আমাদের লিগ্যাল ডিপার্টমেন্ট ও তাদের লিগ্যাল ডিপার্টমেন্ট মিলে বিষয়টি সুরাহা করবে। আমাদের দাবি থাকবে যতদিন পর্যন্ত আমাদের চুক্তি ছিল তার পুরো টাকা প্রাপ্তির। আমরা এখন এই সিদ্ধান্তে অটল আছি। তারপর যদি কোনো দাবি-দাওয়া আসে বা আইনগতভাবে যেটা হয় সেটা দেখা হবে।’ এছাড়া সিইও জানান,এবার টেস্টের জন্য একজন বিশেষজ্ঞ ব্যাটিং কোচ খুঁজছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। বাংলাদেশের ব্যাটিং কোচ হিসেবে কাজ করছেন নিল ম্যাকেঞ্জি। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক এই ব্যাটসম্যানকে মূলত বিশ্বকাপ মাথায় রেখে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তাই টেস্টের জন্য আলাদা ব্যাটিং কোচ নিয়োগের চিন্তা ভাবনা করছে বিসিবি। 

প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরি বলেন, ‘ম্যাকেঞ্জিকে ২০১৯ সালের বিশ্বকাপের কথা মাথায়  রেখে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখন আমাদের টেস্ট ক্রিকেটের জন্য একজন ব্যাটিং কোচ দরকার।’ ম্যাকেঞ্জিকেই টেস্ট ফরম্যাটের জন্য চাইছে বিসিবি। কিন্তু তিনি আগ্রহী নন। সিইও বলেন,‘আমরা ম্যাকেঞ্জিকে  টেস্ট ক্রিকেটের জন্যও চাইছি। কিন্তু তাকে পাওয়া যাবে না। বেশিরভাগ  কোচিং স্টাফকেই আমরা বিশ্বকাপ মাথায় রেখে নিয়োগ দিয়েছি। কিন্তু আমরা এখন একজনকে চাইছি যিনি এসবের পাশাপাশি টেস্টের জন্যও আমাদের সহযোগিতা করতে পারবে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ