ঢাকা, মঙ্গলবার 28 August 2018, ১৩ ভাদ্র ১৪২৫, ১৬ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রাগারাগি করে আমরা আমাদের পরিবারের শান্তিকে ধ্বংস করি

জীবনসঙ্গী বা জীবনসঙ্গিনীর সাথে রাগারাগি করে আমরা আমাদের শান্তিকে ধ্বংস করি। রাগ হলে শয়তান আপনার উপরে আধিপত্য বিস্তার করতে শুরু করে। ছোট্ট একটা ব্যাপারকে আপনার কাছে অনেক বড় মনে হবে,  আপনি এমন সব কথা বলে বসবেন যা হয়ত ভুল করে ফেলা আপনার স্বামী বা স্ত্রীর অন্তরকে এফোঁড়-ওফোঁড় করে দেবে। আপনার রাগের মাথায় বলে ফেলা কথা আপনার মাঝে দুরত্ব তৈরি করে দিবে, পরস্পরের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ কমিয়ে দিবে। এমন সব স্মৃতির জন্ম দিবে দু’জনের মনের মাঝে যা পরবর্তীতে বুকে কাঁটা হয়ে বিঁধবে। তাই রাগ করবেন না। সমস্যা তৈরি হলে আলোচনা করুন।
স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কে চিড় ধরাতে পারলে শয়তান প্রচন্ড আনন্দিত হয়, সে এমন প্রচেষ্টায় লিপ্ত থাকে যেন ছোট্ট ভুলকে কেন্দ্র করে স্বামী-স্ত্রী রাগারাগি করে পারস্পরিক অশান্তি তৈরি করে এবং ফলশ্রুতিতে যেন বড় বড় অন্যায় এবং পাপের জন্ম হবার সুযোগ তৈরি হয়। আল্লাহর কাছে সবসময় দোয়া করুন যেন আল্লাহ আপনাদের সম্পর্ককে যাবতীয় অকল্যাণের হাত থেকে রক্ষা করেন। রাগ হলে কথা না বলে সংযত হোন। আপনার পছন্দ/অপছন্দ এবং ইগোর চেয়ে আপনাদের সম্পর্কটিকে মূল্য দিন। চিৎকার করবেন না, বাজে শব্দ ব্যবহার করবেন না। মনে রাখবেন, রাগান্বিত হয়ে আপনি যা করবেন সবই অকল্যাণকর হবে। আল্লাহ আমাদের রাগ সংযত করার তাওফিক দান করুন। আল্লাহ আমাদের পরিবারগুলোকে অন্যায় ও অকল্যাণের হাত থেকে সুরক্ষিত রাখুন।
সুখী দাম্পত্য জীবনের জন্য প্রয়োজনীয় ২০ টিপস
সুখী দাম্পত্য জীবনের জন্য কিছু প্রয়োজনীয় টিপস জেনে নিন-
১)     একে অপরকে জানিয়ে দিন যে আপনারা পরস্পরকে ভালোবাসেন।
২)     একই সময়ে দু’জন একসাথে রেগে যাবেন না।
৩)     সমালোচনা যদি করতেই হয়, ভালোবাসা দিয়ে বলুন।
৪)     পুরোনো ভুলগুলোকে তুলে আনবেন না।
৫)     কোন তর্ক জিইয়ে রেখে ঘুমাতে যাবেন না, সমাধান করে নিন আগেই।
৬)     একে অপরকে উপেক্ষা করার পরিবর্তে বরং গোটা দুনিয়াকে আগে উপেক্ষা করুন।
৭)     দিনে কমপক্ষে একবার একসাথে সালাত আদায় করুন।
৮)     মনে রাখবেন, সকল সফল স্বামী বা স্ত্রীর পেছনে একজন শ্রান্ত পরিশ্রমী জীবনসঙ্গী থাকে যে সবকিছু ভুলে একটানা কাজ করে যায় অপরজনকে সচল ও সতেজ রাখতে।
৯)     মনে রাখবেন, ঝগড়া করতে দুই জনের প্রয়োজন হয়।
১০)     আপনি যখন কোন ভুল করে ফেলবেন, তা স্বীকার করে নিন।
১১)     দিনে অন্তত একবার আপনার জীবনসঙ্গী/জীবনসঙ্গিনীর প্রশংসা করুন কিংবা তাকে ভালোবেসে দয়ামাখা গলায় কথা বলুন।
১২)     আপনার স্বামী/স্ত্রী বিছানায় যাওয়ার পর আপনি বিছানায় যেতে ১০ মিনিটের বেশি বিলম্ব করবেন না।
১৩)     আপনার জীবনসঙ্গী যখন কিছু বলে, তা মন দিয়ে শুনুন।
১৪)     মনে রাখবেন, আপনার স্বামী/স্ত্রী কিন্তু একটা ক্রিকেট বা ফুটবল ম্যাচ, মুভি, সিরিয়াল, ইউটিউব ভিডিওর চেয়ে বেশি মূল্যবান।
১৫)     আপনার সঙ্গিনী/সঙ্গী যখন নতুন কোন পোশাক পরে তথবা তার চুল ভিন্নভাবে আঁচড়ায় তখন খেয়াল করুন।
১৬)     আপনাদের বিবাহবার্ষিকী এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ দিনগুলোকে স্মরণ রাখতে চেষ্টা করুন।
১৭)     আপনাদের পক্ষ থেকে আপনার সঙ্গী কাউকে কোন উপহার দিলে বা কোন কাজ করে দিলে আপনার পক্ষ থেকে তাকে ধন্যবাদ দিন।
১৮)     যিনি দেরিতে ঘুম থেকে উঠবেন, বিছানা গুছিয়ে রাখুন।
১৯)     আপনার স্বামী/স্ত্রীকে যদি ক্লান্ত-পরিশ্রান্ত দেখায় তবে তা লক্ষ্য করুন এবং তার জন্য কিছু করুন।
২০)    আপনার জীবনসঙ্গী/জীবনসঙ্গিনীকে কখনো সমালোচনা করে আহত করবেন না এবং জনসমক্ষে কখনো তাকে অপমান করবেন না।
[রুকাইয়া ওয়ারিস মাকসুদের ‘The Muslim Marriage Guide’ বইটির ৬৫-৬৬ পৃষ্ঠার আলোচনার আলোকে রচিত]

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ