ঢাকা, মঙ্গলবার 28 August 2018, ১৩ ভাদ্র ১৪২৫, ১৬ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

চৌহালী : যমুনা নদীতে চলছে বালু লুট

সিরাজগঞ্জের চৌহালীর এনায়েতপুরে যমুনা নদী থেকে অবৈধভাবে ভলগেট মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করছে একটি প্রভাবশালী বালুদস্যু চক্র

চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা : সিরাজগঞ্জের চৌহালীতে যমুনা নদী থেকে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে ড্রেজার ও ভলগেট মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন ও বিক্রি করছে স্থানীয় প্রভাবশালী বালুদস্যূ চক্র।
এ কারণে সরকার হারাচ্ছে মোটা অঙ্কের রাজস্ব আর প্রভাবশালী বালুদস্যূ চক্র হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা, অপর দিকে স্থানীয় প্রশাসনের কতিপয় কর্তাব্যক্তি নিয়মিত সুবিধা নেয়ায় বালু তোলা ও বিক্রি বন্ধ হচ্ছে না এমন অভিযোগ এলাকাবাসির। তবে শুক্রবার দুপুরে যমুনা নদীর এনায়েতপুরে দুই ব্যবসায়ীকে ১ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।
সরেজমিন প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, যমুনা নদী বেষ্টিত চৌহালী উপজেলায় কোথায়ও সরকার অনুমোদিত কোন বালুমহল ও বালু উত্তোলনে প্রশাসনের অনুমতি নেই।
তারপরও স্থানীয় প্রভাবশালী বালু দস্যূরা দীর্ঘ দিন ধরে যমুনা নদীর সদিয়া চাঁদপুর, স্থল ইউনিয়ন ও যমুনার পূর্বপাড়ে বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে বিশাল আকৃতির ৮-৯টি ভলগেট ও ড্রেজার দিয়ে ৮-১০জনের বালুখেকো চক্র প্রতিদিন প্রায় দেড়লাখাধিক ঘন ফুট বালু উত্তোলন করছে।
এছাড়া ইঞ্জিনচালিত নৌকা ও ভলগেটের সাহায্যে চরের নিচু জমি থেকে দেশীয় পদ্ধতিতে বালু তুলে এনায়েতপুর স্পার বাঁধ ও চৌহালীর বিভিন্ন স্পটে গড়েছে বালুর স্তুপ। সেখান থেকে ট্রাক ও ট্রলিতে এলাকাসহ পাশের উপজেলার বিভিন্ন বাসা-বাড়িতে নির্মাণ কাজ ও খাল ভরাটের কাজ চলছে।
বালু ব্যবসায়ীরা অবৈধভাবে বালু বিক্রি করে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা।
আর সরকার হারাচ্ছে মোটা অংকের রাজস্ব, অপর দিকে বালুখেকোরা হচ্ছে বিত্তশালী। তবে বালু দস্যূদের নিকট থেকে প্রশাসনের কতিপয় অসাধু কর্তাব্যক্তি ও কর্মচারী অনৈতিক সুবিধা নিচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠেছে। এ কারণেই বালু তোলা ও বিক্রি বন্ধ হচ্ছে না বলে তারা জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ